রাজীব চক্রবর্তী, দিল্লি, ২৪ ফেব্রুয়ারি- ইচ্ছে ছিল পড়ন্ত রোদে তাজ দর্শন করবেন, সূর্যাস্ত দেখবেন তাজমহলে দাঁড়িয়ে। সেই ইচ্ছে পূরণ হল মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প ও ফার্স্ট লেডি মেলানিয়ার। সঙ্গে ইভাঙ্কা-‌জেরাড কুশনারেরও। হাতে হাত ধরে তাজের সৌন্দর্যে মজলেন তাঁরা। আমেদাবাদ থেকে বিকেল ৪টে ১৭ মিনিট নাগাদ আগ্রায় পৌঁছে সোজা তাজমহলে গেলেন ট্রাম্প দম্পতি ও তাঁদের সফরসঙ্গীরা। বাঁদরকুলকে দূরে সরিয়ে রেখে মার্কিন প্রেসিডেন্ট ও তাঁর সঙ্গীদের তাজ দর্শন করিয়ে স্বস্তির নিঃশ্বাস ফেলল উত্তরপ্রদেশ প্রশাসন। ৫টি প্রশিক্ষিত হনুমান আগেভাগে মোতায়েন থাকায় ট্রাম্প ও তাঁর দলবলকে বাঁদরের বাঁদরামি সহ্য করতে হয়নি। তাজ দর্শনে ট্রাম্পের পরনে ছিল কালো সুট, সাদা শার্ট ও হলুদ টাই। মেলানিয়ার পরনে ছিল সাদা রঙের জাম্প সুট। আগ্রায় মার্কিন প্রেসিডেন্টকে স্বাগত জানাতে উপস্থিত ছিলেন উত্তরপ্রদেশের রাজ্যপাল আনন্দীবেন প্যাটেল ও মুখ্যমন্ত্রী যোগী আদিত্যনাথ। তাজদর্শন সেরে সন্ধ্যায় দিল্লিতে পৌঁছেছেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট। তাঁকে স্বাগত জানাতে পালাম বিমানবন্দরে হাজির ছিলেন মার্কিন দূতাবাসের আধিকারিকরা। ট্রাম্পের জন্য আগে থেকেই সেজে উঠেছিল তাজমহল। পর্যটকদের জন্য এদিন বন্ধ রাখা হয়েছিল তাজ। মূলত তাপমাত্রা বৃদ্ধি, বায়ু দূষণের ফলে তাজের গায়ে কালো দাগ দেখা দিচ্ছে। সেই দাগ মুছতে ধুইয়ে দেওয়া হয়েছে গোটা তাজমহলকে। ‘ক্লে প্যাক’ মাখিয়ে স্নান করানো হয়েছে প্রেমের সৌধকে। মমতাজের এই স্মৃতিসৌধের রক্ষণাবেক্ষণ করে আর্কিওলজিক্যাল সার্ভে অফ ইন্ডিয়া। সংস্থার তরফে একজন গাইড ট্রাম্প-‌মেলানিয়াকে গোটা তাজমহল ঘুরিয়ে দেখান। এরই ফাঁকে চলেছে যুগলে ছবি তোলা। ট্রাম্প–তনয়া ইভাঙ্কা নিজের মোবাইলে ধরে রাখলেন তাজের সামনে দাঁড়ানো ছবি। সাহায্য নেন ভারতীয় চিত্রগ্রাহকের। সন্ধ্যা ছ’‌টা পর্যন্ত তাজ দর্শনের পর দিল্লি ফিরে আসেন তাঁরা। তবে, মূল সমাধিস্থলে যাননি তাঁরা। ট্রাম্পের নিজস্ব সুরক্ষাবাহিনী মূল সমাধিস্থলের প্রবেশপথের উচ্চতা দেখার পর ট্রাম্পকে যেতে দেয়নি। ছ’‌ফুটের বেশি উচ্চতার ট্রাম্পের পক্ষে মাথা নীচু করে সেখানে যাওয়া সম্ভব নয় বলে জানিয়েছে তারা। অতীতে মার্কিন প্রেসিডেন্ট বিল ক্লিন্টন, পাকিস্তানের প্রেসিডেন্ট পারভেজ মুশারফ, রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিনরা বিশ্বের সপ্তম আশ্চর্য সৌধ দর্শন করেছেন। মুগ্ধ হয়েছেন। অন্যথা হল না ট্রাম্পের ক্ষেত্রেও। তাজের ভিজিটর্স বুকে ট্রাম্প লিখলেন, ‘‌অনুপ্রেরণা জোগায় তাজমহল। সৌন্দর্যের কালজয়ী নিদর্শন। ধন্যবাদ ভারত।’ নীচে সই করেন ট্রাম্প ও মেলানিয়া। ‌‌

জনপ্রিয়

Back To Top