আজকাল ওয়েবডেস্ক:‌ গ্যাংস্টার সোহরাবুদ্দিন, তার স্ত্রী এবং শাগরেদকে ভুয়ো সংঘর্ষে হত্যা মামলায় মুক্তি পেলেন গুজরাট এটিএস–এর তৎকালীন প্রধান ডি জি বাঞ্জারা। সোমবার নিম্ন আদালতের নির্দেশকে বহাল রেখে এই নির্দেশ দিয়েছেন বম্বে হাইকোর্টের বিচারপতি এ এম বদর। বাঞ্জারার সঙ্গেই মুক্তি পেলেন গুজরাট পুলিসের অন্য অভিযুক্ত অফিসার বিপুল আগরওয়াল, রাজকুমার পান্ডিয়ান, এন কে আমিন এবং রাজস্থান পুলিসের দুই অফিসার দীনেশ এম এন এবং দলপত সিং রাঠোড়। নিম্ন আদালতে ওই অফিসারদের মুক্তির নির্দেশকে চ্যালেঞ্জ জানিয়ে বম্বে হাইকোর্টে আবেদন করেছিলেন সোহরাবুদ্দিনের ভাই রুবাবুদ্দিন এবং সিবিআই। মোট পাঁচটি পুনর্বিবেচনার আবেদন দাখিল হয়। গত জুলাইয়ে টানা দু’‌সপ্তাহ শুনানি চলে। সোমবার রায় দিয়ে বিচারপতি বদর বলেন, মামলা পুনর্বিবেচনার যে আবেদন করেছিলেন আবেদনকারীরা তাতে কোনও জোর নেই।  
প্রসঙ্গত, ২০০৫ সালের নভেম্বরে সোহরাবুদ্দিন এবং তার স্ত্রী কওসরবি এবং ২০০৬ সালের ডিসেম্বরে সোহরাবুদ্দিনের শাগরেদ তুলসীরাম প্রজাপতিকে ভুয়ো সংঘর্ষে হত্যার অভিযোগ ওঠে বাঞ্জারা সহ গুজরাট এবং রাজস্থান পুলিসের ওই কর্মীদের বিরুদ্ধে। মামলাটি সুপ্রিম কোর্টের নির্দেশে গুজরাট থেকে মুম্বইয়ে স্থানান্তরিত করা হয়। এরপর ২০১৬–১৭ সালে মুম্বইয়ের বিশেষ আদালতে বিচার চলার পর অভিযুক্ত ৩৮ জনের মধ্যে ১৫ জন মুক্তি পান তখন। তাঁদের মধ্যে রয়েছেন বিজেপি সভাপতি অমিত শাহ এবং ১৪ জন পুলিসকর্মী।       
 ‌‌

জনপ্রিয়

Back To Top