আজকাল ওয়েবডেস্ক: ফেলে দেওয়া পিপিই ও মাস্ক নিয়ে কী করা যায়, সেই ভাবনায় বহুদিন ধরেই মাথার চুল ছিঁড়ছেন বিশেষজ্ঞরা। কারণ দেশে করোনার সংক্রমণ বাড়ার অন্যতম কারণ হয়ে দাঁড়িয়েছে বর্জন করা পিপিই ও মাস্ক। বাকি ময়লার সঙ্গে সেগুলিকে কুড়িয়ে অন্যত্র ফেলে দেওয়ার সময়ে বহু সাফাইকর্মীর শরীরে করোনা বাসা বাঁধছিল। এছাড়াও পিপিই যে জিনিস দিয়ে তৈরি, অর্থাৎ পলিপ্রোপাইলিন মাটিতে মিশতে পারে না। যার ফলে পরিবেশ দূষণের সম্ভাবনা বাড়িয়ে দিচ্ছে। এবারে সেই চিন্তার অবসান হল। মিলল উপায়। ফেলে দেওয়া পিপিই কিটের জিনিসপত্র দিয়ে তৈরি হবে জ্বালানি। 
ভারতীয় বিজ্ঞানীরা ব্যবহৃত পিপিই–এর সরঞ্জামগুলিকে পুনর্নবীকরণের মাধ্যমে তরল জ্বালানিতে রূপান্তরিত করার একটি উপায় বাতলেছেন। ভাতরীয় একটি জার্নালে পদ্ধথতিটির উল্লেখ করা হয়েছে। গবেষণায় লেখা হয়েছে, পাইরোলাইসিস নামে একটি উচ্চ তাপমাত্রার রাসায়নিক প্রক্রিয়া ব্যবহার করে কয়েক বিলিয়ন ব্যবহৃত পিপিই সামগ্রীকে বায়োফুয়েল বা তরল জ্বালানিতে রূপান্তর করা যায়। উত্তরাখণ্ডের দেরাদুনের পেট্রোলিয়াম অ্যান্ড এনার্জি স্টাডিজ বিশ্ববিদ্যালয় থেকে গবেষণার শীর্ষস্থানীয় লেখক স্বপ্না জৈন একটি বিবৃতিতে উল্লেখ করেছেন, সিন্থেটিক জ্বালানি জৈব ক্রুডে রূপান্তর করার এই পদ্ধতি কেবল মানবজাতি এবং পরিবেশকে বাঁচাবে তাই নয়। শক্তির উৎসও উৎপাদন করবে।
তাঁদের বিশ্লেষণের ভিত্তিতে, বিজ্ঞানীরা ব্যবহৃত পিপিই সরঞ্জামকে পাইরোলাইসিস পদ্ধতিতে জ্বালানিতে রূপান্তরিত করার জন্য অনুরোধ জানিয়েছেন। অক্সিজেন ছাড়াই এক ঘন্টা ধরে ৩০০ থেকে ৪০০ ডিগ্রি সেলসিয়াস তাপমাত্রায় প্লাস্টিকের উপাদানকে ভেঙে ফেলার একটি রাসায়নিক প্রক্রিয়া এটি।

জনপ্রিয়

Back To Top