আবু হায়াত বিশ্বাস,  দিল্লি, ৬ জুন- আবার দৈনিক আক্রান্তের রেকর্ড বৃদ্ধি হল। করোনা আক্রান্তের সংখ্যায় ইতালিকে পিছনে ফেলে বিশ্বে ষষ্ঠ স্থানে পৌঁছে গেল ভারত। আমেরিকা, ব্রাজিল, রাশিয়া, ব্রিটেন, স্পেনের পরেই এখন ভারতের স্থান। বিশ্বের বাকি করোনা সংক্রমিত দেশগুলিতে যখন সংক্রমণ কমতে শুরু করেছে, তখন ভারতে হু হু করে সংক্রমণ বাড়ছে। শনিবার সকাল ৮টা পর্যন্ত কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্যমন্ত্রকের তথ্য বলছে, পূর্ববর্তী ২৪ ঘণ্টায় আক্রান্ত হয়েছেন ৯,৮৮৭ জন। মৃত্যু হয়েছে ২৯৪ জনের। আক্রান্ত ও মৃত্যুর হিসেবে এখনও অবধি এই দুই সংখ্যাই সর্বোচ্চ। সব মিলিয়ে করোনা আক্রান্ত ২ লক্ষ ৩৬ হাজার ৬৫৭। এযাবৎ করোনার থাবায় প্রাণ হারিয়েছেন ৬,৬৪২ জন।
স্বাস্থ্যমন্ত্রকের তথ্যানুসারে গত ২৪ ঘণ্টায় সুস্থ হয়েছেন ৪,৬১১ জন। আর, এখনও পর্যন্ত করোনা থেকে সম্পূর্ণ সুস্থ হয়ে উঠেছেন ১ লক্ষ ১৪ হাজার ৭৩ জন। অর্থাৎ, সুস্থতার হার ৪৮.‌২০ শতাংশ। এই মুহূর্তে দেশে সক্রিয় কেস রয়েছে ১ লক্ষ ১৫ হাজার ৯৪২। এদিকে, রাজধানী দিল্লিতে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা বেড়েই চলেছে। গত ২৪ ঘণ্টায় দিল্লিতে ১,৩৩০ জন নতুন করে আক্রান্ত হয়েছেন। রাজধানীতে সব মিলিয়ে সংক্রমিতের সংখ্যা ২৬,৩৩৪। সুস্থ হয়েছেন ১০,৩১৫ জন। মৃত্যু হয়েছে ৭০৮ জনের। দিল্লির এনফোর্সমেন্ট ডিরেক্টরটের (‌‌ইডি)‌‌ কার্যালয়ের পাঁচ কর্মীর করোনা রিপোর্ট পজিটিভ এসেছে। এরপরেই কার্যালয় জীবাণুমুক্ত করে ৪৮ ঘণ্টার জন্য সিল করে দেওয়া হয়েছে।  এদিকে, দিল্লির স্বাস্থ্য দপ্তরের তরফে জানানো হয়েছে, উপসর্গহীন ও সামান্য উপসর্গ আছে এমন রোগীদের কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্যমন্ত্রকের নির্দেশানুসারে ২৪ ঘণ্টার মধ্যে হাসপাতাল থেকে ছেড়ে দেওয়া হবে। যাদের সামান্য উপসর্গ রয়েছে, তাদের হাসপাতালে না–আসারই পরামর্শ দিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী অরবিন্দ কেজরিওয়াল। 
কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্যমন্ত্রকের তথ্য বলছে, গত ২৪ ঘণ্টায় দেশের মধ্যে সবচেয়ে বেশি করোনা সংক্রমণের খবর মিলেছে মহারাষ্ট্র থেকে। ওই রাজ্যে ২,৪৩৬ জন নতুন করে আক্রান্ত হয়েছেন। এরপরেই রয়েছে তামিলনাড়ু, দিল্লি। মহারাষ্ট্রে সব মিলিয়ে আক্রান্ত হয়েছেন ৮০,২২৯ জন। সুস্থ হয়েছেন ৩৫,১৫৬ জন। মৃত্যু হয়েছে ২,৮৪৯ জনের। অন্যদিকে, তামিলনাড়ুতে একদিনে আক্রান্ত ১,৪৩৮ জন। মোট আক্রান্তের সংখ্যা ২৮,৬৯৪। সুস্থ হয়েছেন ১৫,৭৬২ জন। করোনার অতিমারিতে তামিলনাড়ুতে মৃত্যু হয়েছে ২৩২ জনের। দেশে সর্বাধিক করোনা মৃত্যুর তালিকায় মহারাষ্ট্রের পরেই রয়েছে গুজরাট। ১,১৯০ জনের মৃত্যুর খবর মিলেছে ওই রাজ্য থেকে। নতুন করে আক্রান্ত হয়েছেন ৫১০ জন। সব মিলিয়ে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা ১৯,০৯৪ জন । তবে, গুজরাটে করোনা থেকে সুস্থ হয়েছেন ১৩,০০৩ জন।রাজস্থানে করোনার সক্রিয় কেস র‌য়েছে ২,৫০৭। স্বাস্থ্যদপ্তর সূত্রের খবর, রাজস্থানে সব মিলিয়ে করোনা আক্রান্ত ১০ হাজার ৮৪ জন। তাদের মধ্যে ৭,৩৫৯ জন সম্পূর্ণ সুস্থ। করোনার জেরে ওই রাজ্যে ২১৮ জন প্রাণ হারিয়েছে। উত্তরপ্রদেশের মুখ্য স্বাস্থ্যসচিব অমিত মোহন প্রসাদ জানিয়েছেন, রাজ্য করোনা সংক্রমণ থেকে ৫,৯০৮ জন সুস্থ হয়েছেন। মৃত্যু হয়েছে ২৬৮ জনের। গতকাল ১১,৩১৮ জনের নমুনা সংগ্রহ করে ল্যাবে পাঠানো হয়েছে।‌

জনপ্রিয়

Back To Top