আজকাল ওয়েবডেস্ক:‌ হস্টেলের রুমে বন্ধুর বিছানায় তাঁরই পাশে শুয়ে রয়েছে পাঁচ ফুট লম্বা গোখরো সাপ। এই দৃশ্য দেখে স্বাভাবিকভাবেই আঁতকে উঠেছিলেন ওড়িশার ময়ূরভঞ্জ জেলার বারিপদা শহরে একটি লেডিস হস্টেলের আবাসিক ছাত্রী। তৎক্ষণাৎ বন্ধুকে সতর্ক করেন তিনি। শুয়ে থাকা ছাত্রীটি ভয় পেয়ে গেলেও প্রায় নিঃশব্দে বিছানা ছেড়ে নিচে নেমে যান। তারপরই ওই ছাত্রীরা হস্টেল সুপারকে ঘটনাটি জানান। যে সব ব্যক্তিরা সাপ ধরেন তেমনই একজনকে খবর দেন হস্টেলের কর্মীরা। কৃষ্ণচন্দ্র গুছাইত নামে ওই ব্যক্তি মাছ ধরার ছোট জাল দিয়ে দক্ষতার সঙ্গে গোখরোটি ধরেন। তারপর সাপটিকে সিমলিপালের জঙ্গলে ছেড়ে দেন তিনি। পরে কৃষ্ণচন্দ্র সাংবাদিকদের জানান, সাধারণত, মানুষকে আক্রমণ করে না গোখরো, যদি না সে বুঝতে পারে তার নিজেরই প্রাণসংশয় রয়েছে। সিমলিপালের জঙ্গলে এধরনের আরো সাপ রয়েছে এবং সেখানে তাদের প্রচুর পরিমাণে খাবারও রয়েছে বলেই সেখানে গোখরোটি ছেড়েছেন বলে জানিয়েছেন কৃষ্ণপদ। প্রসঙ্গত, ১৯৭২ সালের বন্যপ্রাণ সংরক্ষণ আইন অনুযায়ী, পূর্ণবয়স্ক গোখরো সংরক্ষিত পশুপ্রাণীর বিভাগে পড়ে।            ‌‌

জনপ্রিয়

Back To Top