আজকাল ওয়েবডেস্ক:‌ বৃহস্পতিবার দিনভর পেঁয়াজের ঝাঁজ মালুম পেল সংসদ। সংসদের বাইরে পেঁয়াজের আকাশছোঁয়া দাম নিয়ে বিক্ষোভ দেখান কংগ্রেস সাংসদরা। সেই দলে যোগ দিয়েছিলেন পি চিদম্বরমও। বুধবার পেঁয়াজের দাম নিয়ে এনসিপি সাংসদ সুপ্রিয়া সুলের প্রশ্নের জবাবে স্বভাবীঢঙে নতুন মন্তব্য করে বসেন কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রী নির্মলা সীতারমণ। তিনি বলেছিলেন, তাঁদের পরিবারে পেঁয়াজ বা রসুন খাওয়া হয় না।

তাই তার দামে তাঁর খুব একটা মাথাব্যথা হয়নি। নির্মলার ওই মন্তব্যের প্রেক্ষিতে এদিন পেঁয়াজ নিয়ে সহকর্মীদের সঙ্গে বিক্ষোভ প্রদর্শনের সময় চিদম্বরমের সরস প্রশ্ন, ‘অর্থমন্ত্রী গতকাল বললেন তিনি পেঁয়াজ খান না। তাহলে তিনি কি অ্যাভোক্যাডো খান?‌’ মূলত মধ্য মেক্সিকো এবং ভূমধ্যসাগরীয় অঞ্চলে উৎপাদিত নাশপাতিজাতীয় ফল অ্যাভোক্যাডো নিরামিশাষী মেনুতে ব্যবহৃত হয়ে থাকে। সবুজ রং–এর ফলটিতে একটিই বড় দানা থাকে।

এই ফলে থাকা অতিমাত্রার ফ্যাটের জন্য যেসব মানুষরা মাংস, মাছ বা অন্যান্য দুগ্ধজাত খাবার খেতে পারেন না তাঁদের খাবারের পদে অনেক সময়ই অ্যাভোক্যাডো রাখা হয়। স্বাদে মিষ্টি না হলেও মিষ্টিজাতীয় খাবারের অন্যতম পদ হিসেবে অ্যাভোক্যাডো প্রিয় নামী রেস্তোরাঁর শেফেদের কাছে।    
কার্তি চিদম্বরম নির্মলাকে ১৮ শতকের ফরাসি রানি মেরি আঁতোয়ানেতের সঙ্গে তুলনা করে টুইট করেন, ‘‌আমাদের নিজেদের মেরি আঁতোয়ানেত’‌।

কংগ্রেসের তরফেও ‘‌নির্মলার রান্নাঘর’ নামে একটি  টুইটার পোস্টে বিভিন্ন খাবারের তালিকা দেওয়া হয়েছে যেখানে পেঁয়াজের নাম কাটা। আপ নেতা রাঘব চাড্ডাও টুইটারে নির্মলাকে আঁতোয়ানেতের সঙ্গে তুলনা করে লিখেছেন, ‘যাঁরা পেঁয়াজ প্রতিনিয়ত খান এবং আকাশছোঁয়া দামের জন্য তা কিনতে পারছেন না, তাঁদেরকে নিয়ে উপহাস করেছেন অর্থমন্ত্রী। তিনি বলেছেন, তিনি পেঁয়াজ খান না। তিনি কি ভারতীয় মেরি আঁতোয়ানেত?‌ বিজেপি তো কাটা ঘায়ে নুনের ছিটে দিচ্ছে।’‌ ‌

জনপ্রিয়

Back To Top