আজকাল ওয়েবডেস্ক:‌ প্রায় ৬০০ কোটি খরচ। ওজন ৩.৮ টন। মানে আটটি হাতির সমান। আগামী ১৫ জুলাই এই বিশাল চন্দ্রযানই পাঠাতে চলেছে ইসরো। প্রথমবার এই চন্দ্রযান যাবে চাঁদের অন্য মেরুতে। যেখানে আজ পর্যন্ত কোনওদিন কোনও অভিযান করা হয়নি। আশা করা হচ্ছে, এবারে চন্দ্র অভিযানে অনেক নতুন তথ্য উঠে আসবে। 
ইসরোর প্রধান কে শিভান জানিয়েছেন, ‘‌স্বাভাবিকভাবে এই বিষয়টি আমাদের মধ্যে একটা উৎসাহ রয়েছে। এতদিন ধরে আমরা সবাই মিলে কাজ করেছি। সেটাই এবার সফল হতে চলেছে। হাজার কোটির কম খরচে এমন কোনও অভিযান এর আগে হয়নি। তাই আলাদা একা উত্তেজনা কাজ করছেই। 
এই মহাকাশযানটি ইসরোর ওড়িশার শ্রীহরিকোটার থেকে ‘‌বাহুবলী’ লঞ্চপ্যাড অর্থাৎ জিএসএলভি মার্ক ৩ লঞ্চার দাঁড়া মহাকাশে পাঠানো হবে। যানের দুটি ল্যান্ডার থাকবে। একটি হল প্রজ্ঞান, যেটি রোভার। অন্যটি বিক্রম, যেটি  ল্যান্ডার। মোট ১৪ ভারতীয় দিন বা এক চন্দ্রদিন সময় লাগবে এই যানটির চাঁদে পৌঁছতে। চাঁদের অন্য পৃষ্ঠে এই মহাকাশ যান খুঁজে দেখবে জলের অস্তিত্ব। পাশাপাশি, সেখানকার মাটি পরীক্ষা করা, পরিবেশ দেখা, এমনকী চাঁদের পৃষ্ঠের কম্পনও এটি মাপবে। এছাড়াও, নাসার একটি লেজার পরিবহণ করবে এই যান। ইসরোর তরফে বলা হয়েছে, এটি বিনামূল্যে মহাকাশে নিয়ে যাবে চন্দ্রযান।  ‌ 

জনপ্রিয়

Back To Top