আজকাল ওয়েবডেস্ক: টানা দ্বিতীয়দিন সেন্ট্রাল ভিজিল্যান্সে হাজিরা দিলেন ঘুষকাণ্ডে অভিযুক্ত সিবিআই অধিকর্তা অলোক‌ বর্মা। বৃহস্পতিবারের মতো শুক্রবারও সেন্ট্রাল ভিজিল্যান্স কমিশনার কে ভি চৌধুরীর কাছে হাজিরা দেন। কে ভি চৌধুরী ছাড়া সিভিসি–র ওই কমিটিতে রয়েছেন শরদ কুমার, টি এম ভাসিন–সহ বেশ কয়েকজন আধিকারিকর। যদিও কমিটি অলোক বর্মাকে কী কী প্রশ্ন করেছে?‌ কিংবা দু’‌পক্ষের মধ্যে কী কথোপকথন হয়েছে?‌ তা সামনে আসেনি। এর আগে বৃহস্পতিবারও সিভিসি–র সামনে হাজিরা দিয়েছিলেন অলোক বর্মা। এছাড়া ওইদিন হাজিরা দিয়েছিলেন রাকেশ আস্থানাও। দু’‌জনেই ঘুষকাণ্ডে নিজেদের বক্তব্য পেশ করেন। দুপুর ১ টা নাগাদ সিবিআইয়ের দুই অপসারিত আধিকারিক সিবিআই দপ্তরে পৌঁছেছিলেন। প্রায় ঘণ্টাখানেক প্রশ্নোত্তর পর্ব চলার পর, তাঁরা সেখান থেকে বেরিয়ে যান। এর আগে গত ২৬ অক্টোবর সেন্ট্রাল ভিজিল্যান্স কমিশনকে দু’‌সপ্তাহের মধ্যে গোটা তদন্তটি শেষ করার নির্দেশ দিয়েছিল সুপ্রিম কোর্ট। এরপরই প্রাক্তন বিচারপতি এ কে পট্টনায়েককে সিভিসি–র তদন্ত তদারকির ভারও দেওয়া হয়।

জনপ্রিয়

Back To Top