আজকাল ওয়েবডেস্ক:‌ আজ ১৪ নভেম্বর। স্বাধীন ভারতের প্রথম প্রধানমন্ত্রী পণ্ডিত জওহরলাল নেহরুর ১৩০তম জন্মদিন। শিশু–কিশোরদের কাছে অত্যন্ত জনপ্রিয় নেহরু তাদের কাছে ‘‌চাচাজি’‌‌ বা ‘‌চাচা নেহরু’‌ নামে পরিচিত ছিলেন। তাই ১৯৬৭ সালের ২৭ মে, নেহরুর মৃত্যুর পর তাঁর জন্মদিবস ‘‌শিশুদিবস’‌ হিসেবে পালিত হয় ভারতে। সেই শিশুদিবসেই, মাত্র ১২ বছরে ব্রিটিশ সেনাদের গুলিতে মৃত, বাজি রাউতের ছবি সোশ্যাল মিডিয়ায় পোস্ট করে তাকে ‘‌দেশের সর্বকনিষ্ঠ শহিদ’‌ নামে ভূষিত করে শ্রদ্ধা জানালেন প্রাক্তন ভারতীয় ক্রিকেটার বীরেন্দ্র শেহবাগ। সঙ্গে লিখলেন ছোট্ট এই শহিদের ইতিহাস বৃত্তান্তও। 
১৯২৬ সালের ৫ অক্টোবর ওডিশার ঢেঙ্কানল জেলায় ব্রাহ্মণী নদীর তীরবর্তী গ্রাম নীলকণ্ঠপুরে দরিদ্র খাণ্ডায়ত পরিবারে জন্ম বাজি রাউতের। খুব অল্প বয়সেই বাবাকে হারিয়ে সংসারের হাল ধরতে নৌকার বৈঠা হাতে নিতে হয় তাকে। তার মা পরিচারিকার কাজ করতেন। ১৯৩৮ সালের এক দিন ব্রাহ্মণী নদী পার করাতে রাজি না হওয়ায় প্রথমে তার মাথায় বেয়নেট দিয়ে আঘাত করে। তাতেই তার মাথা ফেটে যায়। তারপরও কোনওক্রমে উঠে দাঁড়িয়ে বাজি চিৎকার করে বলেছিল প্রাণ থাকতে ব্রিটিশদের নদী পার করাবে না। তারপর আবার তার মাথায় বেয়নেটের আঘাত করে তারপর মাথা লক্ষ্য করে গুলি করে ব্রিটিশ সেনারা। বেয়নেটের আঘাতে বাজির মাথার খুলি টুকরো হয়ে গিয়েছিল। বাজির চার বন্ধু লক্ষ্মণ মালিক, ফাগু সাহু, ঋষি প্রধান এবং নাটা মালিককেও হত্যা করে তারা।

জনপ্রিয়

Back To Top