আজকাল ওয়েবডেস্ক: দেশে অক্সিজেন নিয়ে যেমন ভয়াবহ পরিস্থিতি প্রায় একই রকম হাহাকার রেমডেসিভির নিয়ে। করোনার চিকিৎসায় অনেকক্ষেত্রেই এই ড্রাগ ব্যবহার করছেন চিকিৎসকরা। এই হাহাকারের মধ্যেই খবর এল স্মাগলিংয়ের। ৯ ভাইল রেমডেসিভির পাচার করতে গিয়ে ধরা পড়লেন এক আইটি কর্মী। 
তামিলনাড়ুর হোসুর এবং কর্নাটকের সীমান্ত অঞ্চলে এক ইএসআই হাসপাতাল থেকে ওই ব্যক্তিকে পাকড়াও করেন সিআইডি-র সিভিল সাপলাই দল। ইল্লাভারাসি এবং এসএল থেনারাসু নামক দুই সিআইডি ইনস্পেক্টর শুক্রবার সীমান্তে রুটিন টহলদারি করছিলেন। এ সময় খেয়াল করেন একটি গাড়ি সীমান্ত পেরনোর চেষ্টা করছে। 
গাড়িটিকে থামানো হয়। জিজ্ঞাসাবাদে জানা যায়, আনন্দ বালাজি নামক বেঙ্গালুরুতে বসবাসকারী এক আইটি কর্মী রেমডেসিভিরের ৯টি ভাইল পাচার করছেন। তামিলনাড়ু থেকে বেঙ্গালুরুতে নিয়ে গিয়ে অনেক বেশি দামে বিক্রির অভিপ্রায় ছিল তার। জানা গেছে, এক একটি ভাইল ১০,০০০ টাকায় কিনেছে সে এবং পুলিশকে জানিয়েছে, অন্তত ১৫,০০০ টাকায় বিক্রির উদ্দেশ্য ছিল। সমস্ত রেমডেসিভির বাজেয়াপ্ত করে নিরাপদ স্থানে পাঠিয়ে দেওয়া হয়েছে।   
 

জনপ্রিয়

Back To Top