আজকাল ওয়েবডেস্ক: কোভিড রোগীদের চিকিৎসার্থে ব্যবহৃত একটি হোটেলে বিধ্বংসী আগুন লাগল। ঘটনাটি ঘটেছে রবিবার ভোর পাঁচটা নাগাদ অন্ধ্র প্রদেশের কৃষ্ণা জেলার বিজয়ওয়াড়ায়। অগ্নিকাণ্ডে প্রথমে সাতজনের মৃত্যুর খবর মিললেও পরে মৃতের সংখ্যা বেড়ে হয়েছে ১০জন। রবিবার দুপুরে একথা জানান বিজয়ওয়াড়া–২–এর ডিসিপি বিক্রান্ত পাটিল। ওই কোয়ারানটাইন সেন্টারে ৫০জন রোগী ছিলেন এবং তাঁদের দেখভালের জন্য ১০জন প্যারা মেডিক্যাল কর্মী ছিলেন।
বিজয়ওয়াড়া শহরের পুলিশ কমিশনার বি শ্রীনিবাসালু জানান, হোটেলের একতলায় প্রথম আগুন লাগে। দ্রুত তা ছড়িয়ে পড়ে উপরের তলাগুলিতে। খবর পেয়ে দমকল এবং কুইক রেসপন্স টিম বা কিউআরটি দ্রুত পৌঁছে ৩০ মিনিটের মধ্যে আগুন নিয়ন্ত্রণে আনে। কিন্তু ওই হোটেলে কোনও ফায়ার এক্সিট না থাকায় আগুনে আতঙ্কিত হয়ে পড়ে দুজন রোগী উপর থেকে ঝাঁপ দেন। তাঁদের মধ্যে একজনের গোড়ালি ভেঙেছে। বাকিদের জানলা ভেঙে মই ব্যবহার করে সন্তর্পণে বাইরে আনা হয়।

কমিশনার আরও জানালেন, মোট ৩০জন রোগীকে উদ্ধার করা হয়েছে। পুলিশ, দমকলের অনুমান, শ্বাসকষ্টের সমস্যায় ভুগতে থাকা করোনা–আক্রান্ত রোগীরা ঘন কালো ধোঁয়ায় আরও অসুস্থ হয়ে পড়েন। তাঁদের মধ্যে বেশ কয়েকজনের অবস্থা আশঙ্কাজনক। মৃতদের মধ্যে বেশিরভাগই দমবন্ধ হয়ে মারা গিয়েছেন। দমকলের প্রাথমিক অনুমান, শর্ট সার্কিট থেকেই অগ্নিকাণ্ড। তবে জেলাশাসক এ মহম্মদ ইমতিয়াজ জানান তদন্তের পরই অগ্নিকাণ্ডের প্রকৃত কারণ জানা যাবে।
স্বর্ণ প্যালেস নামে ওই হোটেলটি কোভিড রোগীদের চিকিৎসার্থে রমেশ হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ ভাড়ায় নিয়েছিল। ঘটনার খবর পেয়ে অন্ধ্রের মুখ্যমন্ত্রী ওয়াই এস জগনমোহন রেড্ডি মৃতদের প্রতি শোকজ্ঞাপন করে তদন্তের নির্দেশ দিয়েছেন। টুইটারে শোকপ্রকাশ করে প্রধানমন্ত্রী এবং কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী মুখ্যমন্ত্রীকে সবরকম সাহায্যের আশ্বাস দেন।
ছবি:‌ এএনআই    ‌‌‌‌   ‌

জনপ্রিয়

Back To Top