আজকাল ওয়েবডেস্ক:‌ দুই যুবক পেটে ব্যথা নিয়ে চিকিৎসকের কাছে হাজির হয়েছিলেন। চিকিৎসক দু’‌জনকে অন্তঃসত্ত্বা কিনা তার পরীক্ষা করাতে বললেন। এমনই অদ্ভূত ঘটনা ঘটেছে ঝাড়খণ্ডের ছাতরা জেলায়। সেই চিকিৎসক আবার সিমারিয়ার সরকারি হাসপাতালের চিকিৎসক। ঘটনাটি ঘটে গত ১ অক্টোবর। 
চিকিৎসকের নাম মুকেশ কুমার। দুই যুবককে পরীক্ষার পর তিনি প্রেগনেন্সি টেস্ট করাতে বলেন। শুধু তাই নয়, এইচআইভি, এইচবিএ, এইচসিভি, সিবিসি ও এইচএইচ–২ পরীক্ষা করাতেও বলেন। 
জানা গেছে এক যুবকের নাম গোপাল গাঞ্জু (‌২২)‌। অপর যুবকের নাম কামেশ্বর গাঞ্জু (‌২৬)‌। চিকিৎসক দু’‌জনকে এএনসি টেস্ট করাতে বলেন। হাসপাতালের ল্যাবে গিয়ে দুই যুবক জানতে পারেন, গর্ভবতী কিনা তা জানার জন্য করা হয় এএনসি টেস্ট। এই ঘটনার পর যথেষ্ট বিব্রত হয়ে পড়েন দুই যুবক। গ্রামবাসীদের গোটা ঘটনা জানান। তারপর ওই চিকিৎসকের বিরুদ্ধে অভিযোগ দায়ের করেন। চিকিৎসক অবশ্য গোটা অভিযোগ অস্বীকার করেছেন। জানিয়েছেন, তাঁর বিরুদ্ধে চক্রান্ত করা হচ্ছে। সোশ্যাল মিডিয়াতেও বিষয়টি নিয়ে যথেষ্ট তোলপাড় হয়েছে। 
পুলিশ গোটা বিষয়টি খতিয়ে দেখছে। ‌‌

জনপ্রিয়

Back To Top