আজকাল ওয়েবডেস্ক:‌ আর এক ঘণ্টার মধ্যেই মুম্বইয়ে ঝাঁপিয়ে পড়ছে নিসর্গ। সর্বোচ্চ গতিবেগ থাকতে পারে ১২০ কিলোমিটার। রেহাই পাচ্ছে না ঠানে সহ মহারাষ্ট্রের উপকূলবর্তী এলাকা। মহারাষ্ট্র সরকার অবশ্য সতর্কতার ত্রুটি রাখেনি। আমফান থেকে শিক্ষা নিয়ে আগেভাগেই রেড অ্যালার্ট জারি করল বাণিজ্যনগরী মুম্বইয়ে। মৎস্যজীবীদের সমুদ্রে যেতে নিষেধ করা হয়েছে। হাসপাতাল থেকেও রোগীদেরও সরানো হল।
কোভিড–১৯ এর আঁচ দেশে সবথেকে বেশি পড়েছে মহারাষ্ট্রে। বিশেষত মুম্বইয়ে। সেখানে আক্রান্ত এবং মৃতের সংখ্যা সবথেকে বেশি। দেশে মোট আক্রান্ত এবং মৃতের সংখ্যার পাঁচভাগের একভাগই মুম্বইয়ে। হাসপাতালে থিকথিক করছে করোনা রোগীদের ভিড়। এর মধ্যে মুখ্যমন্ত্রী উদ্ধব ঠাকরের কপালে ভাঁজ ফেলেছে সাইক্লোন নিসর্গ। তুমুল ঝড়ের কারণে বিদ্যুৎ সংযোগ বিচ্ছিন্ন হতে পারে। সেক্ষেত্রে বিপাকে  পড়বেন রোগীরা। তাই আগেভাগেই বেশ কিছু হাসপাতাল থেকে সরানো হল তাঁদের।
কোভিড–১৯ আক্রান্তদের ভিড় সামাল দিতে মুম্বইয়ে বেশ কিছু অস্থায়ী হাসপাতাল খোলা হয়েছিল। এই নিসর্গের কারণে সেগুলো পুরোপুরি ফাঁকা করে দেওয়া হয়েছে। মুম্বই মেট্রোপলিটান রিজিওন ডেভলপমেন্ট অথরিটির মাঠে এ রকমই একটি হাসপাতাল তৈরি করা হয়েছিল দু’‌ সপ্তাহ আগে। সেখান থেকে প্রায় ১৫০ রোগীকে সরানো হল। নির্মীয়মাণ বহুতল, মেট্রোর কাজও বন্ধ রাখা হয়েছে। নামিয়ে রাখা হয়েছে ভারি ক্রেন।

জনপ্রিয়

Back To Top