আজকাল ওয়েবডেস্ক:‌ ‘‌করোনার সঙ্গে মোকাবিলা করতে গেলে করুণা প্রদর্শন করতে হবে।’ বললেন দেশের প্রধানমন্ত্রী। প্রসঙ্গ, দেশের বিভিন্ন প্রান্তে বিভিন্ন হাসপাতালে ও নার্সিংহোমে কর্মরত চিকিৎসক ও নার্সদের হেনস্থার শিকার হতে হচ্ছে বাড়িওয়ালাদের কাছ থেকে। কিন্তু প্রধানমন্ত্রীর কৃতজ্ঞতা দেখানোর ভঙ্গী কি আদপে একটি হুজুগ ছিল?‌ এই পরিস্থিতিতে মোদির কথামতো সবাই ঘণ্টা তো বাজালেন, কিন্তু সময় আসতেই যোদ্ধাদের হেনস্থা করলেন ভাইরাস ছড়ানোর অভিযোগে।  
বুধবার ভিডিও কনফারেন্স করে বেনারসের মানুষজনের সঙ্গে কথা বলার সময়ে এই ঘটনার তীব্র নিন্দা করলেন নরেন্দ্র মোদি। সাদা কোট পরে থাকা মানুষদের ঈশ্বরের জায়গা দিলেন তিনি। সঙ্গে এও জানালেন, সমস্ত রাজ্যের পুলিশ প্রধানদের নির্দেশ দিয়এছেন, এরকম কোনও ঘটনার রিপোর্ট এলেই অপরাধীদের শাস্তি দেওয়া হোক। তিনি আবার সবাইকে মনে করিয়ে দিলেন, কী উদ্দেশ্যে জনতা কার্ফিউয়ের দিন ঘণ্টা বাজিয়েছিল দেশবাসী। চিকিৎসক, নার্স ও সাফাইকর্মীদের প্রতি সমবেদনা দেখানোর সময় এখন। এ যুদ্ধের যোদ্ধা তাঁরাই। বললেন, তাঁদের প্রতি করুণা না করলে করোনাকে আটকানো যাবে না। দেশবাসীর প্রতি তাঁর আবেদন, যদি কেউ আশেপাশে এরকম কোনও ঘটনা দেখতে পান, যাঁরা খারাপ ব্যবহার করছেন, তাঁদেরকে গিয়ে বোঝান। 

জনপ্রিয়

Back To Top