আজকাল ওয়েবডেস্ক:‌ ‘‌তাড়াহুড়ো করছে আইসিএমআর’। ভ্যাকসিনের ট্রায়ালই এখনও সম্পূর্ণ হল না, আগেই বাজারে নিয়ে আসার দিনক্ষণ ঠিক হয়ে যাচ্ছে। তাও আবার ১৫ আগস্ট!‌ আইসিএমআর–এর ব্যস্ততা ভাল চোখে দেখছে না বিজ্ঞানীমহল। দিন পাঁচেক আগেই দেশের প্রথম করোনা টিকা পরীক্ষামূলকভাবে মানব শরীরে প্রয়োগের অনুমতি দিয়েছে ইন্ডিয়ান কাউন্সিল অফ মেডিক্যাল রিসার্চ। ঠিক তারপর গত বৃহস্পতিবার তারা নির্দেশ দেয়, আগামী ১৫ আগস্টের মধ্যেই ওই টিকা বাজারে আনতে হবে। কোভ্যাক্সিন। হায়দরাবাদের ভারত বায়োটেক ও আইসিএমআর–এর যৌথ উদ্যোগে তৈরি হচ্ছে ভ্যাকসিনটি। ২ জুলাই ‌আইসিএমআর–এর ডিরেক্টর জেনারেল বলরাম ভার্গব দেশের ১২টি সংস্থাকে চিঠি লিখে মানব শরীরে টিকা পরীক্ষার জন্য দ্রুত সব ব্যবস্থা করতে বলেন। জানানো, যাঁদের ওপর এই টিকা পরীক্ষা হবে, ৭ তারিখের মধ্যে নাম নথিভুক্ত করতে হবে তাঁদের। নির্দেশ অমান্য হলে কঠোর ব্যবস্থা, দেওয়া হয় হুঁশিয়ারিও। এবিষয়ে ইন্ডিয়ান জার্নাল অফ মেডিক্যাল এথিক্সের সম্পাদক অমর জেসানি বলেছেন, ‘‌মানব শরীরে পরীক্ষা শুরুর আগেই গোটা বিশ্বে কেউ এভাবে নতুন টিকা আনার দিন ঠিক করেছে বলে আগে শুনিনি। বিজ্ঞানে এভাবে কাজ হয় না বলে।’‌   আইসিএমআর-এর বায়োএথিক্স সেলের এথিক্স অ্যাডভাইসরি কমিটির চেয়ারপার্সন বসন্তা মুথুস্বামী বলেন, সময়টা খুবই কম। খুব দ্রুত কাজ হলেও কম করে বছর খানেক সময় লাগার কথা। অথছ সরকারি ট্রায়াল এজেন্সির বক্তব্য, সময় লাগতে ১ বছর ৩ মাস। পাশাপাশি যে ১২টি সংস্থায় ট্রায়াল হবে, সেগুলির অধিকাংশই এখনও সরকারি সবুজ সঙ্কেত পায়নি। ওড়িশার ইনস্টিটিউট অফ মেডিক্যাল সায়েন্সেস ও এসইউএম হাসপাতালের প্রধান ভেঙ্কট রাও জানান, সরকারি অনুমতি না পেলে কাজে হাত দেব না।  কর্নাটকের বেলগাঁওয়ের জীবনরেখা হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ অবশ্য ট্রায়ালের জন্য তৈরি। তাদের বক্তব্য, ১৫ আগস্টের মধ্যে ১১০ শতাংশ না হোক, ৯৯ শতাংশ কাজ শেষ করা সম্ভব। সরকার যখন ওই তারিখ ঠিক করেছে, কিছু একটা ভেবেই করেছে। যদিও এই তাড়াহুড়োকে ‘‌অবৈজ্ঞানিক’‌ বলে মনে করছেন বিশেষজ্ঞদের একাংশ। অনেকে বলেন, ‘‌স্বাধীনতা দিবসের দিন যাতে প্রধানমন্ত্রী করোনা টিকার ঘোষণা করতে পারেন, তাই এই তাড়াহুড়ো।’‌

জনপ্রিয়

Back To Top