সাগরিকা দত্ত চৌধুরি: আগামী রবিবার কালীপুজো। আলোর উৎসবে মাতবে গোটা দেশ। চারদিকে আতশবাজি ফাটাতে ব্যস্ত থাকবেন সকলে। তবে আনন্দ করতে গিয়ে চোখ–ত্বক বাঁচিয়ে সাবধানতা অবলম্বন করে আতশবাজি ফাটানোর নিদান দিচ্ছেন চিকিৎসকরা। ত্বকরোগ বিশেষজ্ঞদের মতে, বাজির মধ্যে সালফার জাতীয় রাসায়নিক পদার্থ থাকায় বেশিরভাগ ক্ষেত্রে কনট্যাক্ট ডার্মাটাইটিস হওয়ার আশঙ্কা থাকে। ত্বক লাল হয়ে যায়, চুলকোয়, শ বেরোয়। যে সমস্ত শিশুর অ্যাটোপিক ডার্মাটাইটিস রয়েছে তাদের ক্ষেত্রে প্রকোপ আরও বাড়ে। চক্ষুবিশেষজ্ঞরা জানাচ্ছেন, বারুদের ধোঁয়া থেকে চোখ চুলকোয়, জ্বালা করে, শুকনো হয়ে যায়। বাজির টুকরো যদি হঠাৎ করে চোখে লাগে, তাহলে সঙ্গে সঙ্গে পরিষ্কার ঠান্ডা জল দিয়ে চোখ ধুয়ে নিতে হবে অন্তত ১০ মিনিট। সম্ভব হলে বরফ বা ঠান্ডা কোনও বস্তু চোখে চেপে ধরতে হবে।
দিশা আই হাসপাতালের চক্ষুবিশেষজ্ঞ ডাঃ সোহম বসাক বলেন, ‘‌বাজি পোড়ানোর সময় কনট্যাক্ট লেন্স না পরাই ভাল। আতশবাজির ধোঁয়া, তাপে চোখ চুলকোতে পারে। হঠাৎ করে বাজি ফেটে কোনও দুর্ঘটনা হলে সরাসরি চোখে আঘাত লাগা থেকে কিছুটা রক্ষা পেতে সুরক্ষিত চশমা পরে নিলে ভাল হয়। চোখে আঘাত লাগলে না ঘষে, হলুদগুঁড়ো, নারকেল তেল ব্যবহার না করে জল দিয়ে ধুয়ে নিতে হবে। রঙ্গোলি তৈরি করা কিংবা বাজি পোড়ানোর সময় চোখে হাত দেবেন না।’‌ 
ন্যাশনাল মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের চর্মরোগ বিভাগের অ্যাসোসিয়েট প্রফেসর ডাঃ অভিষেক দে বলেন, ‘‌যাঁদের ত্বক স্পর্শকাতর, তাঁদের অতি সাবধান হওয়া উচিত। বাজি পোড়ানোর আগে হাতে, মুখে ময়শ্চারাইজার অথবা নারকেল তেল মেখে নিলে ভাল হয়। পোড়া বাজি বিশেষ করে তারাবাজি, ইলেকট্রিক তারের মতো বাজি হাতে লেগে চামড়া পুড়ে গেলে কিংবা জ্বালা করলে তখন বরফ বা ঠান্ডা জল লাগাতে হবে। কোনওরকম মাজন, তেল ত্বকে লাগানো যাবে না। ত্বকের যেখানে চুলকাবে সেখানে সঙ্গে সঙ্গে পরিষ্কার ঠান্ডা জল দিয়ে ভাল করে ধুয়ে ক্যালামাইন জাতীয় কিছু লাগিয়ে নিলে ভাল হয়। তৎক্ষণাৎ চিকিৎসকের পরামর্শ নিতে হবে।’
চিকিৎসকরা আরও বলছেন, স্থানীয় চক্ষুবিশেষজ্ঞের ফোন নম্বর হাতের কাছে রাখার চেষ্টা করবেন। ছোটদের বাজি ফাটাতে নিষেধ করা উচিত। একান্তই না হলে বড়রা ছোটদের সঙ্গে থাকতে হবে। বাজি ফাটানোর সময় সুতির পোশাক পরা উচিত। যাঁদের শ্বাসকষ্টের সমস্যা রয়েছে, বারুদের ধোঁয়া থেকে তাঁদের সমস্যা আরও বাড়ে। কাজেই মুখে মাস্ক পরে নিলে ভাল হয়। আপৎকালীন পরিস্থিতিতে অবশ্যই স্থানীয় হাসপাতালে দেখাবেন।  ‌‌

জনপ্রিয়

Back To Top