আজকাল ওয়েবডেস্ক:‌ ফাদার্স ডে। নামেই বোঝা যায় এটা পিতৃত্বের দিন। এই দিনটা আসলে ব্যস্ত জীবনের ফাঁকে বাবাকে একটু বেশি সময় দেওয়ার দিন। 
মধ্য যুগে, ক্যাথলিক ইয়োরোপে প্রথম পাওয়া যায় এই দিনের উল্লেখ। নিউট্রিটর ডোমিনি বা নারিশর অফ দ্য লর্ড, সেইন্ট জোসেফের নামে ১৯ মার্চ পালিত হয় দিনটি। ক্যাথলিকদের বিশ্বাস, সেইন্ট জোসেফই হলেন যিশুর বাবা। যেহেতু যিশুকে মানুষ করেছিলেন তিনি তাই তাঁকে বলা হয় নারিশর অফ দ্য লর্ড। রাজা হেরডের হাত থেকে তাঁদের সন্তানকে বাঁচাতে অন্তঃসত্ত্বা প্রেমিকা মেরিকে নিয়ে পাড়ি দিয়েছিলেন জেরুজালেমের দিকে। পেশায় গরিব কাঠুরে হলেও যিশুকে মানুষ করতে যথাসম্ভব কষ্ট করেছিলেন জোসেফ। বাবার কাছে বসে কাঠুরের কাজও শিখেছিলেন যিশু। সেই থেকেই সন্তানের প্রতি বাবার দায়িত্ব এবং বাবার প্রতি সন্তানের কর্তব্যবোধের প্রকাশ হিসেবে ফাদার্স ডে–র প্রচলন।   
পরে যখন স্প্যানিশ এবং পর্তুগিজরা আটলান্টিক পেরিয়ে উত্তর এবং লাতিন আমেরিকায় উপনিবেশ গড়ে তোলে, তখন তাদের হাত ধরেই ওই দুই মহাদেশে প্রচলন হয় ফাদার্স ডে–র। লাতিন আমেরিকা এবং ইয়োরোপে এখনও ১৯ মার্চকেই ফাদার্স ডে বলে মানা হলেও মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে সাধারণত, জুনের তৃতীয় রবিবারে পালিত হয় ফাদার্স ডে। তবে কয়েকটি ইয়োরোপ এবং এশিয়ার কয়েকটি দেশে আবার এপ্রিল এবং মে মাসেও ফাদার্স ডে পালিত হয়। ‌‌

জনপ্রিয়

Back To Top