আজকালের প্রতিবেদন: আপেলের মোম প্রাকৃতিক। সম্পূর্ণ নিরাপদ। নির্দ্বিধায় খান। জানালেন মেয়র পারিষদ (‌‌স্বাস্থ্য)‌ অতীন ঘোষ। সোমবার সাংবাদিক বৈঠকে অতীন ঘোষ বলেন, কয়েকদিন ধরে আপেল নিয়ে একটা সংশয় তৈরি হচ্ছে। সেই সংশয় দূর করল কলকাতা পুরসভা। আপেলে মোমের অভিযোগ আসার পরই পাইকপাড়া থেকে আপেলের নমুনা সংগ্রহ করেন পুর স্বাস্থ্যকর্মীরা। তা পরীক্ষা করে দেখা হয়েছে। তাতে কোনও কেমিক্যাল মোম পাওয়া যায়নি। গাছ থেকে আপেল পেড়ে আনা টাটকা আপেলের গায়ে একটা পাতলা মোমের আস্তরণ থাকে। এতে আপেলের ওজনে কোনও পার্থক্য হয় না। আপেল শুকিয়ে যায় না। এটা প্রাকৃতিকভাবেই তৈরি হয়। প্যাকিংয়ের সময় আপেল ধুয়ে নিতে হয়। এতে মোম ধুয়ে যায়। সতেজ রাখতে তাতে প্রাকৃতিক মোম ব্যবহার করা হয়। দৈনন্দিন জীবনে একটি প্রয়োজনীয় খাদ্য। অতি সাধারণ থেকে অর্থনৈতিকভাবে সচ্ছল সকলেই আপেল খান। আপেল প্রোটিনযুক্ত খাবার। এটা নিয়ে একটা সন্দেহ তৈরি হচ্ছে। এ ধরনের সন্দেহ তৈরি হওয়ার কোনও জায়গা নেই। বাজারে দু ধরনের আপেল পাওয়া যায়। প্রাকৃতিক মোম ছাড়া আপেলে যে মোম ব্যবহার করা হয় তা সম্পূর্ণ নিরাপদ। বিদেশ থেকে যেসব আপেল এদেশে আসে তাতেও মোমের আস্তরণ থাকে। স্টিকার দেওয়া আপেল। সেখানেও প্রাকৃতিক মোমের ব্যবহার। এই মোম ১০০ শতাংশ প্রাকৃতিক। কোনও পেট্রোলিয়ামজাত জিনিস দিয়ে তৈরি হয় না। ভারত স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ দপ্তরের পরামর্শ নেওয়া হয়েছে। এই মোম ভারত সরকার স্বীকৃত। ভিটামিন ক্যাপসুল, চকোলেটেও প্রাকৃতিক মোমের ব্যবহার হয়। এটা ক্ষতিকর নয়।  

জনপ্রিয়

Back To Top