আজকালের প্রতিবেদন: ‌‌‌‌শিল্পোদ্যোগীদের পরামর্শ নিয়ে রাজ্য সরকার একটি নতুন পর্যটন–‌নীতি তৈরি করতে চলেছে। খুব শিগগিরই মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জি এই নীতি প্রকাশ করবেন বলে জানালেন রাজ্যের স্বরাষ্ট্র এবং পর্যটন দপ্তরের প্রধান সচিব অত্রি ভট্টাচার্য। তিনি বলেন, ‘‌পর্যটনের ক্ষেত্রে বিনিয়োগ বাড়ছে। কর্মসংস্থানের অনেক সুযোগ ঘটেছে। এই মুহূর্তে এ রাজ্যে পর্যটন শিল্পে ৫ লক্ষ কর্মসংস্থান হয়েছে। রাজ্য সরকার মুর্শিদাবাদকে নিয়ে একটি ট্যুরিস্ট সার্কিট তৈরি করছে। দেশ–‌বিদেশের পর্যটকদের কাছে পশ্চিমবঙ্গের বিভিন্ন জায়গা জনপ্রিয় যেমন হয়েছে, তেমনই অনেকে বিনিয়োগে আগ্রহ প্রকাশ করেছেন। গুরুত্ব দেওয়া হচ্ছে হোম স্টে ট্যুরিজমে। পাশাপাশি জলপথ পরিবহণকে পর্যটন–‌মানচিত্রে আনা হচ্ছে।’‌ পর্যটন দপ্তরের বিভাগীয় সচিব মণীশ জৈন জানালেন, ‘‌এখনও পর্যন্ত গত তিন বছরে যৌথ উদ্যোগে বিনিয়োগ হয়েছে ৩,৬০০ কোটি টাকা। আগামী ৫ বছরে ৫,৫০০ কোটি টাকা বিনিয়োগ হবে।’‌ 
বৃহস্পতিবার, নন্দন ৩–এ সিআইআই (‌কনফেডারেশন অফ ইন্ডিয়ান ইন্ডাস্ট্রি)‌ এবং পর্যটন দপ্তরের উদ্যোগে এক সাংবাদিক সম্মেলনের আয়োজন করা হয়। ১৮ থেকে ২৫ জানুয়ারি পর্যন্ত রাজারহাট কনভেনশন সেন্টারে পর্যটন সম্মেলন অনুষ্ঠিত হবে। সিআইআই–এর তরফে বিজয় দেওয়ান জানিয়েছেন, ‘‌৩০টি দেশের ১০২ জন প্রতিনিধি এই সম্মেলনে অংশ নেবেন। বড় বড় পর্যটন সংস্থার প্রতিনিধিরাও এখানে থাকবেন। তঁারা বিভিন্ন দলে ভাগ হয়ে উত্তরবঙ্গের গজলডোবা, দার্জিলিং, ডুয়ার্স থেকে শুরু করে সুন্দরবন, পুরুলিয়া, দিঘা, মন্দারমণি যাবেন। রাজ্যের পর্যটনের ক্ষেত্রে মুখ্যমন্ত্রীর উদ্যোগে যে–‌সব ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে তা তঁারা ঘুরে দেখবেন।’‌ 
পর্যটন দপ্তরের প্রধান সচিব জানান, ‘‌বিদেশি পর্যটকেরাই নন, দেশের নানা রাজ্য থেকে পর্যটক এমন–‌কি ভ্রমণপিপাসু বাঙালিরাও আসছেন এই সব জায়গা দেখতে। কলকাতা ও বাগডোগরা বিমানবন্দরের তথ্য বলছে, বিদেশি পর্যটকদের সংখ্যা দিন–‌দিন বাড়ছে। পশ্চিমবঙ্গ পর্যটন উন্নয়ন নিগম তাদের বিভিন্ন কটেজ সাজাচ্ছে। সরকারি পর্যটন আবাসগুলি যৌথ উদ্যোগে চালানোর কথা চিন্তা–‌ভাবনা করা হচ্ছে। এক কথায়, প্রত্যেকটি ঘর দৃষ্টিনন্দন করে সাজানো হয়েছে।’‌ সিআইআই–‌এর প্রতিনিধি অতুল বালা জানালেন, ‘‌পশ্চিমবঙ্গে পর্যটন শিল্পে বিনিয়োগের আগ্রহ বেড়েছে অনেকেরই। রাজ্য সরকার নতুন নতুন দ্রষ্টব্য স্থান খুঁজে বের করেছে। সব মিলিয়ে রাজ্যের পর্যটনের চালচিত্রটাই বদলে গেছে।’‌

অত্রি ভট্টাচার্য

জনপ্রিয়

Back To Top