দীপঙ্কর নন্দী: তৃণমূল ছাত্র পরিষদের অবস্থান মঞ্চে ভিড় বাড়ছে। গত ৭ দিন ধরে এনআরসি, ক্যা প্রত্যাহারের দাবি নিয়ে অবস্থান চলছে রানি রাসমণি অ্যাভেনিউতে। শুক্রবার রাজ্য স্তরের নেতারা এসেছিলেন অবস্থানে। এরা কেউই মঞ্চে ওঠেননি, দর্শকাসনে বসেছিলেন। ছিলেন পার্থ চ্যাটার্জি, নির্বেদ রায়, ডেরেক ও’‌ব্রায়েন, ইন্দ্রনীল সেন, দোলা সেন, বাবুন ব্যানার্জি, বৈশ্বানর চট্টোপাধ্যায়, জয়া দত্ত প্রমুখ। সাংসদ শুভাশিস চক্রবর্তী মঞ্চে উঠে এনআরসি ও ক্যা–‌র বিরুদ্ধে প্রতিবাদ জানান। তিনি বলেন, ‘‌মমতা যে আন্দোলনের ডাক দিয়েছেন, তাকে আরও শক্তিশালী করা প্রয়োজন। এ ব্যাপারে ছাত্র‌ছাত্রীদেরই এগিয়ে আসতে হবে।’‌ মঞ্চে ছাত্র‌ছাত্রীদের ভিড় ছিল। এদের মধ্যে অনেকেই এদিন বক্তব্য পেশ করেন। কয়েকজন কবিতাপাঠ ও গান করেন। সন্ধ্যের মুখে তৃণমূল ছাত্র পরিষদের সভাপতি তৃণাঙ্কুর ভট্টাচার্য–‌সহ মঞ্চের ছাত্রছাত্রীরা উঠে দাঁড়িয়ে স্লোগান দেন। অবস্থান চলবে রবিবার পর্যন্ত। সোমবার থেকে তৃণমূল মহিলা কংগ্রেস একই মঞ্চে অবস্থান শুরু করবে। সভানেত্রী চন্দ্রিমা ভট্টাচার্য জানান, ‘‌আমাদের প্রস্তুতি শুরু হয়ে গেছে। নেত্রী যেমনভাবে নির্দেশ দিয়েছেন, সেভাবেই আমরা অবস্থান চালিয়ে যাব।’‌
এদিন দুপুর থেকেই মঞ্চের নীচে অনেক ছাত্র পোস্টার লিখেছেন। সেই পোস্টার মঞ্চের ধারে টাঙিয়ে দেওয়া হয়েছে। যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয় থেকে বেশ কিছু ছাত্রছাত্রী অবস্থান মঞ্চে আসেন। বিকেলের পর ছাত্রদের অবস্থান মঞ্চ দেখে যান সাধারণ মানুষও। রাজ্য নেতারা কয়েকজন ছাত্র ও ছাত্রীর বক্তৃতা শুনে ভূয়সী প্রশংসা করেন। বিভিন্ন কলেজের সামনেও এনআরসি ও ক্যা–‌র বিরুদ্ধে প্রতিবাদ জানিয়ে পড়ুয়ারা আন্দোলন করছে বলে তৃণাঙ্কুর জানান। এদিন মূল মঞ্চের সামনে বসে বেশ কিছু ছাত্রছাত্রী কেন্দ্রের বিরুদ্ধে স্লোগান দেন। তাঁরা বলেন, যতদিন না প্রত্যাহার করা হচ্ছে, ততদিন এই আন্দোলন চলবে। আগামী দিনে এই অবস্থানে ভিড় বাড়বে। মঞ্চের চারিদিকে ছাত্রছাত্রীদের দেখা যায়। কলকাতার বাইরে থেকে বেশ কয়েকটি কলেজের পড়ুয়ারাও এদিন অবস্থান মঞ্চে আসেন। তাঁদের মধ্যে কয়েকজন বক্তব্যও রাখেন।‌

ধর্মতলায় তৃণমূল ছাত্র পরিষদের ধর্নামঞ্চে উৎসাহী ছাত্রছাত্রীর দল। শুক্রবার। ছবি: কুমার রায়

জনপ্রিয়

Back To Top