‌আজকালের প্রতিবেদন: যাঁদের প্রশিক্ষণ নেই, সর্বশিক্ষা মিশনের সেই শিক্ষকদের বিনামূল্যে প্রশিক্ষণের ব্যবস্থা করবে পঞ্চায়েত দপ্তর। শিক্ষক দিবস উপলক্ষে মধূসূদন মঞ্চের এক অনুষ্ঠানে এ কথা জানান পঞ্চায়েত মন্ত্রী সুব্রত মুখার্জি। প্রশিক্ষণের জন্য ১০ সেপ্টেম্বরের মধ্যে নাম নথিভুক্ত করতে হবে। 
পঞ্চায়েতের অধীনে শিশুশিক্ষা কেন্দ্র ও মাধ্যমিক শিক্ষা কেন্দ্র রয়েছে। সব মিলিয়ে শিক্ষক–‌সংখ্যা ৬৬ হাজারের মতো। একজনেরও প্রশিক্ষণ নেই। এদিকে শিক্ষার অধিকার আইন অনুযায়ী শিক্ষক–‌পদে চাকরি করতে গেলে প্রশিক্ষণ বাধ্যতামূলক। আগে, ২০১৭ সালের ৩১ মার্চের মধ্যে সব ধরনের শিক্ষকদের প্রশিক্ষণ বাধ্যতামূলক বলেছিল কেন্দ্রীয় মানবসম্পদ উন্নয়ন মন্ত্রক। সম্প্রতি এই সময়সীমা বাড়িয়ে কেন্দ্রের তরফে ২০১৯ সালের ৩১ মার্চ করা হয়েছে।
এদিনের অনুষ্ঠানে পঞ্চায়েত মন্ত্রী বলেন, ‘‌এই শিক্ষকদের দু’‌বছরের প্রশিক্ষণের ব্যবস্থা করা হবে। প্রশিক্ষণের ব্যয়ভার বহন করবে পঞ্চায়েত দপ্তর। ১০ সেপ্টেম্বরের মধ্যে নাম নথিভুক্ত করতে হবে।’‌ এদিন সর্বশিক্ষা অভিযানের শিক্ষকদের বেতন কম হওয়া নিয়েও অভিযোগ করেন তিনি। কেন্দ্রকে দায়ী করে জানান, বেতন বাড়ানোর সুপারিশ করে চিঠি দেওয়া হচ্ছে। এদিকে শিক্ষক দিবস উপলক্ষে বিধাননগরের পূর্বঞ্চলীয় সংস্কৃতি কেন্দ্রের এক অনুষ্ঠানে শিক্ষামন্ত্রী পার্থ চ্যাটার্জি স্কুলপড়ুয়াদের মধ্যে মোবাইলের ব্যবহার নিয়ে উদ্বেগ প্রকাশ করেন। বলেন, ‘‌পড়াশোনার সময় যাতে ছাত্রছাত্রীদের হাতে মোবাইল না থাকে, সেটা দেখতে হবে।’‌ 
ব্লু হোয়েল গেম নিয়েও সতর্ক করেন তিনি। কলেজ–‌শিক্ষকদের জন্য যে–‌নিয়ম তৈরি করা হচ্ছে, তা ভাঙার আবেদন করেন।

শিক্ষক দিবসের অনুষ্ঠানে সুব্রত মুখার্জি ও শোভনদেব চ্যাটার্জি। মধুসূদন মঞ্চে। মঙ্গলবার। ছবি: বিজয় সেনগুপ্ত

জনপ্রিয়

Back To Top