আজকালের প্রতিবেদন
লকডাউন ভেঙে বাইরে বের হওয়ার পুরস্কার মিষ্টির প্যাকেট, ফুলের মালা!‌ কোথাও বা আবার পথে বের হওয়ায় সঙ্গের সাইকেল ঘাড়ে চাপিয়ে বারি ফেরত পাঠানো। এভাবে নরমে–গরমে পুলিশ সাধারণ মানুষকে ঘরে থাকার পাঠ শিখিয়ে সফল করল আগস্টের দ্বিতীয় লকডাউন।
এদিন চুঁচুড়ায় মাস্ক ছাড়া বাড়ির বাইরে রাস্তায় বেরিয়ে আড্ডা মারছিল। হুগলি মোড়ে এই দৃশ্য নজরে পড়ল কর্মরত পুলিশ কর্মীদের। কোনও ধমক, প্রশ্ন না করে গান্ধীগিরি করলেন চুঁচুড়া থানার আধিকারিক উৎপল মল্লিক। গলায় পরিয়ে দিলেন গাঁদা ফুলের মালা। হাতে ধরিয়ে দিলেন মিষ্টির প্যাকেট। হাত ধরে বললেন, অনেক বলে, বুঝিয়ে কাজ হয়নি, তাই লকডাউন ভাঙার জন্য পুরস্কার দেওয়া হল। পুলিশের আচরণে লজ্জিত ওই ব্যক্তিরা ভুল স্বীকার করে সোজা বাড়িতে ঢুকে পড়ে। সকালে কলকাতার তারাতলায় পুলিশের নজরে আসে এক ব্যক্তি সাইকেলে করে যাচ্ছে। তাকে থামিয়ে বের হওয়ার কারণ জানতে চাওয়া হয়। সদুত্তর দিতে না পারায় সাইকেলটি কাঁধে চাপিয়ে তাকে বাড়ি ফিরতে বলা হয়। 
এভাবেই আগস্টের দ্বিতীয় লকডাউনও সফল হল পুলিশি তৎপরতায়। কলকাতায় নিয়ম ভেঙে পথে নেমে গ্রেপ্তার হয়েছেন ৬৭১ জন। এর মধ্যে ৩৭৯ জনকে মাস্ক ব্যবহার না করার অভিযোগে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। ২৫ জন গ্রেপ্তার হয়েছে পথে থুতু ফেলে। ৩২টি গাড়ির বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করা হয়েছে। বিধাননগরে ৬০ জনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। ৭টি বাইক ও ৭টি গাড়ি বাজেয়াপ্ত করা হয়েছে। রাজ্যের অন্যত্রও ছিল কড়া নজরদারি।
শনিবারও সকাল ৬টা থেকে শুরু হয় লকডাউন। তার আগে থেকেই নাকা চেকিংয়ে কলকাতা শহরকে ঘিরে ফেলেছিল কলকাতা পুলিশ। শহরে ঢোকা, বের হওয়ার পথের পাশাপাশি অন্য সড়কগুলিতেও চলে পিকেটিং। ঘনবসতিপূর্ণ এমন এলাকাগুলিতে ওড়ানো হয় ড্রোন। লকডাউনের অন্য দিনগুলোর মতোই এদিনও জরুরি পরিষেবা সব খোলা ছিল। 
দমদম নাগেরবাজার এলাকায় পথে নামা স্কুটার আটকাতে গিয়ে জখম হয়েছেন এক মহিলা সিভিক ভলান্টিয়ার। তাঁর পায়ের ওপর দিয়ে স্কুটার চালিয়ে দেওয়া হয়। স্কুটারচালককে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। ডানলপে নিয়ম ভেঙে পথে নামে একটি ট্রাক। সেটি আটকাতে বাইক নিয়ে তাড়া করেন এক সিভিক ভলান্টিয়ার। ট্রাকের সামনে চলে যান। ট্রাকচালক সিগনাল ভেঙে পালানোর চেষ্টা করে। প্রাণে বাঁচতে বাইক থেকে ঝাঁপ দেন ওই সিভিক ভলান্টিয়ার। 
লকডাউনে কলকাতার মতোই হাওড়া, হুগলি, দুই ২৪ পরগনা–সহ স্তব্ধ ছিল রাজ্যের সব জেলা। বসিরহাটে মাস্ক ছাড়া রাস্তায় বেরোতে দেখলেই পুলিশ তাঁর হাতে মাস্ক ধরিয়ে দিয়েছে। মেদিনীপুর, খড়্গপুর, বেলদা, ঘাটালে লকডাউন ভাঙায় পুলিশ ৫৬ জনকে আটক করেছে। ‌দক্ষিণ ২৪ পরগনায় গ্রেপ্তার করা হয়েছে ৩৬০ জনকে। 
এদিকে, পুলিশের তাড়া খেয়ে হাওড়া ব্রিজের ওপর উলঙ্গ হয়ে দৌড়োলেন অটোচালক। অটোচালকের কাণ্ড দেখে অবাক পুলিশ কর্তা, কর্মীরা। শনিবার সকালে ৩ যাত্রীকে গঙ্গাস্নান করিয়ে হাওড়ার দিকে ফিরছিল ওই অটোচালক। আটকায় পুলিশ। লকডাউনের নিয়ম ভাঙায় সকলকে থানায় যেতে বলে। আচমকা অটোচালক নিজের পোশাক খুলে ফেলে সম্পূর্ণ উলঙ্গ হয়ে হাওড়া ব্রিজের ওপর দৌড়োতে শুরু করে দেয়। পুলিশকর্মীরা ধাওয়া করে ধরে ফেলেন। পরে ৪ জনকেই গ্রেপ্তার করা হয়েছে।‌‌

জনপ্রিয়

Back To Top