সাগরিকা‌ দত্তচৌধুরি
কোভিড আক্রান্ত চিকিৎসকের বিল ২২ লক্ষ টাকা!‌ শুধু প্যাথলজি টেস্টের জন্য ৭ লক্ষ টাকা। দেখে চক্ষু চড়কগাছ পশ্চিমবঙ্গ স্বাস্থ্য নিয়ন্ত্রক কমিশনের। প্যাথলজিক্যাল টেস্ট নিয়ে নির্দেশিকা তৈরি করতে বিশেষ কমিটি গঠন করা হয়েছে। ডাঃ সুকুমার মুখার্জি, ডাঃ শুভঙ্কর চৌধুরি, ডাঃ রাজা রায়, ডাঃ শর্বরী সোয়াইকা, ডাঃ মৈত্রেয়ী ব্যানার্জি, ডাঃ বিভূতি সাহা, ডাঃ সুশ্রুত বন্দ্যোপাধ্যায় এবং ডাঃ তন্ময় ব্যানার্জি থাকবেন। সোমবার স্বাস্থ্য কমিশনের চেয়ারপার্সন কলকাতা হাইকোর্টের অবসরপ্রাপ্ত বিচারপতি অসীমকুমার ব্যানার্জি জানিয়েছেন, ‘‌ইতিমধ্যেই অনেকগুলি নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। দেখা গেছে বারে বারে একই টেস্ট বিনা প্রয়োজনে করা হচ্ছে। অহেতুক বিল বাড়ছে। যা রোগীর পক্ষে দেওয়া সম্ভব নয়। বিলে স্বচ্ছতা থাকা দরকার। রোগীর পরিজনকে বিলের ব্যাপারে বিস্তারিত জানানো প্রয়োজন।’ কোভিড–১৯–এ কো–‌মর্বিডিটি থাকা আর না থাকা রোগীদের চিকিৎসায় বিশেষজ্ঞদের মতামতে প্যাথলজিক্যাল গাইডলাইন তৈরি হবে।‌
এদিন কয়েকটি অভিযোগের শুনানি নিয়ে চেয়ারপার্সন আলোচনা করেন। বাঘাযতীন সংলগ্ন এক বেসরকারি হাসপাতালে করোনা আক্রান্ত হয়ে ভর্তি ছিলেন ২৬ জুন থেকে ২৪ জুলাই স্ত্রী রোগ বিশেষজ্ঞ ডাঃ সিতাংশু পাঁজা। পরে মেডিক্যাল কলেজে ভর্তি করলে সেখানে ১ আগস্ট মৃত্যু হয়। বেসরকারি হাসপাতালে বিল ধরানো হয় ২২ লক্ষ টাকা। কমিশন খতিয়ে দেখছে।
শ্যামনগরের বাসিন্দা এক মহিলার পড়ে গিয়ে পা ভেঙে যায়। ব্যারাকপুরের এক নার্সিংহোমে ভর্তি ছিলেন। স্বাস্থ্য কমিশনের কাছে গাফিলতির অভিযোগ জানান রোগীর আত্মীয় তারক বোস। বাঁ হাতে ইন্ট্রাভেনাস ইঞ্জেকশন দিতে গিয়ে হাত ফুলে গ্যাংগ্রিন হয়ে যায়। হাতের চিকিৎসায় নার্সিংহোম বাড়তি টাকা চায়। কিন্তু পরিবার নার্সিংহোমের গাফিলতির জন্য টাকা দিতে চায়নি। তাঁরা শুধু পা ভাঙার চিকিৎসার খরচ দিতে রাজি ছিলেন। তার ওপর শ্যামনগর থেকে ব্যারাকপুরে নিয়মিত রোগীকে আনতে অ্যাম্বুল্যান্স খরচ হতো তিন হাজার টাকা। স্বাস্থ্য কমিশন অভিযোগের বিস্তারিত হলফনামা দু’‌সপ্তাহের মধ্যে দিতে বলেছে। ওই রোগীকে এসএসকেএম হাসপাতালে ভর্তির ব্যবস্থা করা হয়। উত্তর ২৪ পরগনার জেলা মুখ্য স্বাস্থ্য আধিকারিককে রোগীকে অ্যাম্বুল্যান্স পরিষেবা দিতে বলেছে কমিশন।    
এয়ারপোর্ট সংলগ্ন এক নার্সিংহোমে ১৩ বছরের কিডনি বিকল হয়ে এক কিশোরের মৃত্যু হয়। অভিযোগ, নার্সিংহোম কর্তৃপক্ষ চিকিৎসায় গাফিলতি হয়নি বলে জোর করে মৃতের বাবাকে দিয়ে মুচলেকা লিখিয়ে নেয়। কমিশন জানায়, এরকম মুচলেকা নেওয়া যায় না। বিস্তারিত রিপোর্ট চেয়েছে কমিশন।‌‌‌‌

জনপ্রিয়

Back To Top