আজকাল ওয়েবডেস্ক:‌ শোভন–বৈশাখী জুটিকে ঘিরে বিজেপির অন্দরে দ্বন্দ্ব চরমে। জয় ব্যানার্জির বিতর্কিত মন্তব্যের মুখ খুললেন বৈশাখী ব্যানার্জি। সোমবার সংবাদমাধ্যমের মুখোমুখি হয়েছিলেন শোভন চ্যাটার্জি ও বৈশাখী ব্যানার্জি। রাজ্য বিজেপির নেতা ও অভিনেতা জয় ব্যানার্জির মন্তব্যের তীব্র প্রতিক্রিয়া জানিয়ে বৈশাখী ব্যানার্জি বলেন, ‘‌অত্যন্ত কুরুচিকর, নিম্নরুচির মানুষ একটি রাজনৈতিক সভায় আমার সম্পর্কে যা বলেছেন, তা নিয়ে কথা বলতে আমার রুচিতে বাধছে। গোটা বিষয়টি রাজ্য বিজেপির সভাপতি দিলীপ ঘোষ এবং অরবিন্দ মেননকে জানিয়েছি। নিজের স্ত্রীর প্রতি উনি যে মনোভাব পোষণ করেন, তা থেকেই বোঝা যায় উনি কী প্রকৃতির মানুষ।’‌ বিজেপিতে যোগ দেওয়ার পরেই দলের বিভিন্ন নেতা শোভন–বৈশাখীর বন্ধুত্ব নিয়ে খারাপ মন্তব্য করেছেন। সেবিষয়েও সংবাদমাধ্যমে মুখ খুলেছেন তিনি। এদিন শোভনবাবু আবারও স্পষ্ট করে দিলেন যে দেবশ্রী রায় বিজেপিতে যোগ দিলে তিনি বিজেপি ছেড়ে বেরিয়ে আসবেন। তবে শোভনবাবু আবার পুরনো দলে ফিরে যাবেন কিনা, সে বিষয়ে স্পস্ট করে কিছু বলেননি। তবে যুগলের বক্তব্যে তৃণমূল কংগ্রেসের প্রতি নরম মনোভাবের ইঙ্গিতও পাওয়া গিয়েছে। 
রবিবার পূর্ব বর্ধমানের বড়শুলে বিজেপির একটি সভায় শোভন–বৈশাখীর প্রসঙ্গ তুলেছিলেন জয় ব্যানার্জি। কটাক্ষের সুরে জয় বলেন, শোভনবাবু অভিজ্ঞ রাজনীতিবিদ হিসেবে দলে এলেও বৈশাখী ব্যানার্জি রাজনীতিতে আনকোরা। তাই দেবশ্রী রায়ের যোগদান নিয়ে বৈশাখী বন্দ্যোপাধ্যায়ের দেওয়া শর্ত তিনি মানতে নারাজ বলে দলীয় সভামঞ্চ থেকেই বিজেপির রাজ্য এবং কেন্দ্রীয় নেতৃত্বকে বার্তা দেন জয়। দেবশ্রীর যোগদানে শোভন- বৈশাখী দল ছেড়ে যেতে চাইলে চলে যেতে পারেন বলেও মন্তব্য করেন তিনি। এখানেই থেমে না থেকে শোভন–বৈশাখীর বন্ধুত্বের সম্পর্ক নিয়েও কটাক্ষ ছুড়ে দেন বিজেপি নেতা। তিনি বলেন, ‘‌বাংলা প্রেমের জায়গা। পরকীয়ার জায়গা নয়। ঘরে স্বামী থাকতে অন্য এক পুরুষের সঙ্গে সিঁদুর পরে ঘুরে বেড়াবেন, এটা বাংলা সংস্কৃতি নয়। এটা বাংলার মানুষ মেনে নেবে না।’‌    ‌‌

জনপ্রিয়

Back To Top