আজকাল ওয়েবডেস্ক:‌ অবস্থার আরও অবনতি হল সৌমিত্র চট্টোপাধ্যায়ের। সোমবার রাতেই তাঁকে ভেন্টিলেশনে দেওয়া হয়। চিকিৎসকরা জানিয়েছেন, তাঁর কিডনি ক্রমশ কাজ করা বন্ধ করছে। স্নায়ুও কাজ করছে না। মস্তিষ্কের স্নায়ু একেবারেই কাজ করছে না। চেতনা কমে এসেছে।
হাসপাতাল সূত্রে জানা গেছে, অভিনেতার রক্তে সোডিয়াম এবং পটাশিয়ামের মাত্রার তারতম্য ঘটেছে। ২৪ অক্টোবর থেকে সৌমিত্রর শারীরিক অবস্থার অবনতি হয়েছে । করোনা এনসেফ্যালোপ্যাথির সংক্রমণ বেড়েছে। দেশ ও বিদেশের স্নায়ুরোগ বিশেষজ্ঞদের পরামর্শ নেওয়া হচ্ছে। 
তিনি আগে থেকেই এনসেফালোপ্যাথি এর জটিল সমস্যায় আক্রান্ত ছিলেন। গত কয়েকদিনে অনেকটাই নিয়ন্ত্রিত হয়েছিল। কিন্তু সম্প্রতি তা আবার বেড়েছে। তাঁর প্লেটলেটের সংখ্যাও কমেছে। শরীরে বেড়েছে ইউরিয়া আর সোডিয়ামের মাত্রা। ইমিউনোগ্লোবিন এবং স্টেরয়েড দিয়ে আগে পরিস্থিতির কিছুটা উন্নতি হয়েছিল। কিন্তু তা দীর্ঘস্থায়ী হয়নি।
৬ অক্টোবর করোনা আক্রান্ত হয়ে বেলভিউ হাসপাতালে ভর্তি হন সৌমিত্র চট্টোপাধ্যায়। চিকিৎসকরা জানিয়েছিলেন, পুরনো ক্যানসার শরীরে অনেকটাই ছড়িয়ে পড়েছে। তবে ধীরে ধীরে উন্নতি করছিলেন ৮৫ বছরের অভিনেতা। চলছিল। মিউজিক থেরাপি। সম্প্রতি ফের অবস্থার অবনতি। 

জনপ্রিয়

Back To Top