আজকালের প্রতিবেদন- সভাপতি হয়েও তিনি ছিলেন সকলের সহকর্মী। তাই মঙ্গলবার তিনি যখন এই দায়িত্বভার আরেকজনের হাতে তুলে দিচ্ছেন, তখন প্রতিষ্ঠানে তঁার সহযোদ্ধারা তঁাকে অনুরোধ করলেন, যেন আগামী দিনেও তঁাকে এভাবেই সঙ্গে পাওয়া যায়। মঙ্গলবার শহরে বেঙ্গল ন্যাশনাল চেম্বার অফ কমার্স অ্যান্ড ইন্ডাস্ট্রি (‌বিএনসিসিআই)‌–এর ১৩২তম বাৎসরিক সাধারণ সভাতে এই ঘটনারই সাক্ষী থাকলেন সকলে। এদিন প্রতিষ্ঠানের বিদায়ী সভাপতি সত্যম রায়চৌধুরী সভাপতির দায়িত্ব তুলে দিলেন অর্পণ মিত্রের হাতে। ছিলেন রাজ্যের ক্রীড়া ও যুবকল্যাণ দপ্তরের রাষ্ট্রমন্ত্রী লক্ষ্মীরতন শুক্লা, তৃণমূল সাংসদ ও চিত্রশিল্পী যোগেন চৌধুরী, আরেক চিত্রশিল্পী শুভাপ্রসন্ন, বুরুন্দির রাষ্ট্রদূত স্টেলা বুদরিগানাইয়া এবং কলকাতায় চীনের কনসাল জেনারেল ঝা লিউ প্রমুখ। ছিলেন কলকাতা পুরসভার মেয়র পারিষদ (‌উদ্যান)‌ দেবাশিস কুমার এবং অভিনেত্রী ঋতুপর্ণা সেনগুপ্ত। 
এদিন ‘‌ভয়েস অফ ইন্ডিয়ান বিজনেস’‌ নামে একটি বই প্রকাশ করা হয়। ছিলেন টেকনো ইন্ডিয়া গ্রুপের ডিরেক্টর মৌ রায়চৌধুরী, অভিনেত্রী গার্গী রায়চৌধুরী, দেবদূত রায়চৌধুরী প্রমুখ। বইটিতে ১৮৮৭–‌তে বিএনসিসিআই প্রতিষ্ঠিত হওয়ার সময় থেকে হালফিলের ইতিহাস বর্ণনা করা আছে। সম্পাদনা করেছেন সিস্টার নিবেদিতা ইউনিভার্সিটির আচার্য সত্যম রায়চৌধুরী। বইটি প্রকাশিত হয়েছে সিস্টার নিবেদিতা ইউনিভার্সিটি প্রেস থেকে।  
এদিন সত্যম রায়চৌধুরী বলেন, ‘‌মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জির নেতৃত্বে এই রাজ্য এগিয়ে চলেছে। এই মুহূর্তে ক্ষুদ্র, ছোট এবং মাঝারি উদ্যোগ বা মাইক্রো স্মল মিডিয়াম এন্টারপ্রাইজ (‌এমএসএমই)‌–এ এই রাজ্য উল্লেখযোগ্য ভূমিকা নিয়েছে।’‌ ২০১৮–‌তে সভাপতির দায়িত্ব নেওয়ার পর কীভাবে তিনি বিদেশের সঙ্গে বাণিজ্যকে এগিয়ে নিয়ে গেছেন, সে প্রসঙ্গে বিদায়ী সভাপতি জানিয়েছেন, বাণিজ্যিক প্রসারের জন্য এই প্রতিষ্ঠান থেকে প্রতিনিধি দল রাশিয়া এবং চীন গেছে। রাজ্যের সঙ্গে থাইল্যান্ডের বাণিজ্য বাড়াতে থাইল্যান্ড গেছে। পর্যটনের প্রসারে আয়োজন করা হয়েছে ‘‌গ্লোবাল ট্যুরিজিম’‌–এর। শিক্ষার প্রসারে এই প্রতিষ্ঠান উল্লেখযোগ্য ভূমিকা নিয়েছে। জেলায় জেলায় কর্মপ্রার্থীদের দক্ষতা বাড়াতে উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে। যা খুবই কাজে এসেছে। রাজারহাটে তৈরি হচ্ছে বিএনসিসিআই অফিস। কলকাতায় বিএনসিসিআই অফিসে উদ্বোধন হয়েছে বিজনেস লাউঞ্জের। 
রাজ্য সরকার এবং সহকর্মীদের সহযোগিতাতেই তিনি বিএনসিসিআই–‌কে এগিয়ে নিয়ে যেতে পেরেছেন। সে কথা জানিয়ে এদিন সত্যম রায়চৌধুরী কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেন। নতুন সভাপতি অর্পণ মিত্র প্রতিষ্ঠানকে এগিয়ে নিয়ে যাওয়ার জন্য সকলের সহযোগিতা চান।
ক্রীড়া জগতে সত্যম রায়চৌধুরীর ভূমিকার কথা তুলে লক্ষ্মীরতন শুক্লা বলেন, তিনি বহু গরিব খেলোয়াড়কে সাহায্য করেছেন। শুভাপ্রসন্ন এবং যোগেন চৌধুরী দু‌জনেই অনুরোধ করেন সংস্থা যেন ছোট উদ্যোগপতিদের সাহায্যে এগিয়ে আসে। বুরুন্দির রাষ্ট্রদূত এবং চীনের কনসাল জেনারেল দু‌জনেই আগামী দিনে রাজ্যের বাণিজ্য এবং সম্পর্ককে এগিয়ে নিয়ে যেতে তঁাদের সহযোগিতার আশ্বাস দিয়েছেন।

 

বিএনসিসিআই–এর বিদায়ী সভাপতি সত্যম রায়চৌধুরী স্বাগত জানাচ্ছেন নতুন সভাপতি অর্পণ মিত্রকে। পার্ক হোটেলে, মঙ্গলবার।  ‌‌‌

জনপ্রিয়

Back To Top