আজকালের প্রতিবেদন: সকলকে সঙ্গে নিয়ে চলার ভাবনা নিয়ে ‘‌বিশ্ববাংলা শারদ সম্মান ২০১৯’‌ প্রতিযোগিতার ঘোষণা হল মঙ্গলবার। এদিন থেকেই পুজো উদ্যোক্তারা প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহণের জন্য আবেদন করতে পারবেন। আবেদন করা যাবে ২৬ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত। দুপুর ১২টা থেকে সন্ধে ৭টা পর্যন্ত আবেদনপত্র পাওয়া যাবে কলকাতা তথ্যকেন্দ্রে। পাওয়া যাবে আচার্য জগদীশচন্দ্র বোস রোডের বিশ্ববাংলা শারদ সম্মানের কার্যালয় থেকেও। আবেদন করা যাবে অনলাইনেও। বিস্তারিত জানা যাবে www.biswabangla sharad samman.com ‌এই ওয়েবসাইটে। 
‌এ বছরও বিদেশের পুজোকে সম্মান জানাবে তথ্য সংস্কৃতি দপ্তর। প্রতিযোগিতায় থাকছে জেলা ও কলকাতার পুজো। চতুর্থী থেকেই পুজো পরিদর্শনে বেরিয়ে পড়বেন বিচারকরা। 
এদিন তথ্য সংস্কৃতি দপ্তরের রাষ্ট্রমন্ত্রী ইন্দ্রনীল সেন প্রতিযোগিতার সূচনা করে জানান, কলকাতার জন্য বিভাগগুলি হল— সেরা প্রতিমা, সেরা মণ্ডপ, সেরা ভাবনা, সেরা আলোকসজ্জা, সেরা পরিবেশবান্ধব পুজো, সেরা আবিষ্কার, সেরা থিম, সেরা আবহ, সেরা প্রতিমাশিল্পী, সেরা বিশ্ববাংলা উপস্থাপনা, সেরা ঢাকিশ্রী, সেরা সাবেকি এবং সেরার সেরা। প্রতিটি বিভাগের জন্য থাকছে প্রথম, দ্বিতীয় ও তৃতীয় পুরস্কার। প্রতিটি জেলার জন্য থাকছে সেরা পুজো, সেরা মণ্ডপ, সেরা প্রতিমা এই তিনটি পুরস্কার। শুধু কলকাতা বা জেলা নয়, পুরস্কারের জন্য বেছে নেওয়া হবে দেশের সেরা পুজোগুলিকেও। বিদেশের পুজোগুলো সাধারণত তিথির নির্ঘণ্ট মেনে হয় না। সপ্তাহান্তে হয়ে থাকে। তাই তাঁরা আবেদন করবেন অনলাইনে। একইভাবে রাজ্যের বাইরের পুজোগুলিও অনলাইন আবেদনের ভিত্তিতে অংশগ্রহণ করতে পারবে।
তিনি আরও জানান, পুজো পরবর্তী সময়ে বিজয়ীদের পুরস্কৃত করা হবে। সেরা প্রতিমাগুলিকে নিয়ে কার্নিভাল হবে ১১ অক্টোবর চতুর্দশীর দিন। অনুষ্ঠানে ছিলেন তথ্য সংস্কৃতি দপ্তরের প্রধান সচিব বিবেক কুমার, তথ্য অধিকর্তা মিত্র চ্যাটার্জি, কৌস্তভ তরফদার ও শঙ্খ সাঁতরা।   ‌‌‌

জনপ্রিয়

Back To Top