আজকালের প্রতিবেদন- সোমবার থেকে ৫৯ টাকা কেজি দরে পেঁয়াজ বিক্রি শুরু হল রেশন দোকানগুলিতে। লাইন দিয়ে সকলে পেলেন পরিবার পিছু এক কিলো করে পেঁয়াজ। সোমবার কলকাতার ৪০৮টি রেশন দোকান থেকে ভর্তুকির পেঁয়াজ বিক্রি শুরু হয়েছে। রাজ্যের বিভিন্ন প্রান্তে সুফল বাংলার ১৩১টি স্টলের পাশাপাশি ১০৫টি স্বনির্ভর গোষ্ঠীর মাধ্যমে সরকারি দরে পেঁয়াজ বিক্রি হচ্ছে। সব মিলিয়ে রাজ্যে এক হাজারেরও বেশি জায়গায় এদিন ৫৯ টাকা কেজি দরে পেঁয়াজ বিক্রি হয়েছে। বাজারে ১৪০ থেকে ১৫০ টাকা কেজি দরে পেঁয়াজ বিক্রি হচ্ছে। সেখানে রেশনে মাত্র ৫৯ টাকা!‌ দারুণ খুশি সাধারণ মানুষ। 
উত্তর কলকাতার আহিরীটোলার বি কে পাল এলাকার রেশন দোকানে সকাল সকাল লাইন দিয়েছিলেন রত্না মুখার্জি। সপ্তাহ খানেকের ওপর পেঁয়াজ ছাড়াই রান্না করেছেন। জানালেন, ৫৯ টাকায় এক কেজি পেঁয়াজ পেলাম। আজ একটু জমিয়ে মাংস রান্না করব। পরিবারের সকলে জমিয়ে খাবেন। সুনীল সেন জানালেন, পেঁয়াজ ছাড়া খাবার খেতে খেতে বাচ্চারা বিরক্ত হয়ে গিয়েছিল। আজ সবাই খুশিমনে খেতে পারবে। সস্তায় পেঁয়াজ পেয়ে খুশি জয়দেব মুখার্জিও। জানালেন, এবার গিন্নির মুখে হাসি ফুটবে। মাছের ঝোলে স্বাদ ফিরবে।
আজ, মঙ্গলবার থেকে কলকাতার ৯৩৪টি ও শহরতলির ৫০০টি রেশন দোকান থেকে ৫৯ টাকা কেজি দরে পেঁয়াজ পাওয়া যাবে। পেঁয়াজ বণ্টন নিয়ে রবিবারই খাদ্য ভবনে মুখ্য কৃষি উপদেষ্টা প্রদীপ মজুমদার বিভিন্ন দপ্তরের আধিকারিকদের নিয়ে জরুরি বৈঠক করেন। সারা রাত ধরে পেঁয়াজ সংগ্রহ করা হয়। এরপর সোমবারই কলকাতা–সহ উত্তর ২৪ পরগনা, হাওড়া, হুগলিতে ভর্তুকির পেঁয়াজ বিক্রি শুরু হয়। অল ইন্ডিয়া ফেয়ার প্রাইস শপ ডিলার্স অ্যাসোসিয়েশনের সাধারণ সম্পাদক বিশ্বম্ভর বসু জানিয়েছেন, রাজ্য সরকারের এই উদ্যোগে শামিল হতে সোমবার বন্ধের দিনেও রেশন দোকান খোলা হয়। ‌

রেশন দোকানে মিলছে পেঁয়াজ। উত্তর কলকাতায়। ছবি:‌ অভিজিৎ মণ্ডল

জনপ্রিয়

Back To Top