দীপঙ্কর নন্দী: বৃহস্পতিবার সকালে উত্তরবঙ্গে কয়েকটি জেলা থেকে ট্রেনে করে দলের কর্মীরা কলকাতায় এলেন। আজ সকালে উত্তরবঙ্গ থেকেই আরও নেতা ও কর্মী আসছেন। দিন যত এগিয়ে আসছে, ২১ জুলাই ঘিরে বাড়ছে উন্মাদনা। রাজ্যের মন্ত্রী গৌতম দেব বৃহস্পতিবার সকালে জানান, ‘‌২১ জুলাই নিয়ে কর্মীদের আবেগ আছে। প্রতিবারই তাঁরা দলনেত্রী মমতা ব্যানার্জির বক্তব্য শুনতে আসেন। নির্বাচনের ফলাফলের ওপর এই আবেগের হেরফের হয় না। আমরা জানি, উত্তরবঙ্গে এবার ফলাফল আশানুরূপ হয়নি। কিন্তু তা সত্ত্বেও উত্তরবঙ্গের বিভিন্ন জেলা থেকে বহু কর্মী কলকাতায় যাচ্ছেন। বন্যার জন্য কিছু এলাকা ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। সব জায়গা থেকে জল সরেনি। সেখানকার কর্মীরা হয়তো আসতে পারবে না।’‌ 
উত্তরবঙ্গ থেকে বৃহস্পতিবার সকালে যাঁরা এসেছেন, তাঁরা শিয়ালদা ক্যাম্প অফিস হয়ে গেছেন সল্টলেকের সেন্ট্রাল পার্কে। এখানেই উত্তরবঙ্গ থেকে আসা কর্মীদের থাকার ব্যবস্থা করা হয়েছে। তৃণমূলের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে, আজ থেকেই কলকাতায় ভিড় শুরু হয়ে যাবে। 
ধর্মতলায় মঞ্চ বাঁধার কাজ চলছে। প্রস্তুতি তুঙ্গে। ২‌/‌১ দিনের মধ্যেই মঞ্চ বাঁধা শেষ হয়ে যাবে। সাংসদ, বিধায়ক, সমাজের বিশিষ্ট ক্ষেত্র থেকে যাঁরা আসবেন, তাঁদের জন্য বসার আলাদা জায়গা করা হচ্ছে। ১৩ জন শহিদ পরিবারের লোকজনদের আনা হবে। তাঁদের সম্মান জানাবেন দলনেত্রী মমতা ব্যানার্জি। এছাড়া সিঙ্গুর, নন্দীগ্রাম ও নেতাইয়ের শহিদ পরিবারের লোকজনরাও আসছেন। তাঁদের প্রতি শ্রদ্ধা জানিয়ে প্রতিবারই মমতা অনুষ্ঠান শুরু করেন। মঞ্চের নিচে ১৩ জন শহিদের নাম লেখা হয়। সেখানেও ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা জানানো হয়।‌ 
অত্যন্ত শৃঙ্খলার মধ্যে দিয়ে অনুষ্ঠান সম্পন্ন করার জন্য নেতারা স্বেচ্ছাসেবকদের সঙ্গে বৈঠক করছেন। বৃহস্পতিবারও রাজ্য সভাপতি সুব্রত বক্সি ভবানীপুরের অফিসে বসে স্বেচ্ছাসেবকদের সঙ্গে বৈঠক করেছেন। গতবার যে মাপের মঞ্চ করা হয়েছিল, এবারও তাই হচ্ছে। বুধবার রাতেই বেহালার সরশুনাতে দলের মহাসচিব পার্থ চ্যাটার্জি ২১ জুলাই উপলক্ষে বিশাল সভা করেন। তিনি দলমত নির্বিশেষে সকলকে ধর্মতলার সভায় আসতে অনুরোধ করেন। বৃহস্পতিবারও নেতারা মিটিং–‌মিছিল করেছেন। বিভিন্ন ওয়ার্ডের গেট তৈরি করা হয়েছে। মমতার ছবি দিয়ে শহর জুড়ে লাগানো হয়েছে হোর্ডিং। 
২১ জুলাইয়ের শহিদ সভার এবার গুরুত্ব একটু অন্যরকম। সবে লোকসভা নির্বাচন শেষ হয়েছে। ফলাফলের পর দলের পক্ষ থেকে বিজেপি–‌র বিরুদ্ধে ইভিএম নিয়ে কারচুপির অভিযোগ করা হয়েছে। তাই দলনেত্রী দাবি করেছেন, ‘‌গণতন্ত্র ফিরিয়ে দাও, ইভিএম নয়, ব্যালট ফেরাও।’‌ তৃণমূলের এক নেতা বলেন, ‘‌২১ জুলাইয়ের মঞ্চ থেকে দলনেত্রী নতুন বার্তা দেবেন। আগামী দিনে কর্মীদের কী করতে হবে, সে নির্দেশও তিনি দেবেন। তাঁর বক্তব্য শোনার অপেক্ষায় রয়েছেন সবাই। এবার দেখা যাচ্ছে, মহিলাদের মধ্যে উৎসাহ আরও বেশি। পদযাত্রায় তাঁরা অংশ নিচ্ছেন।  পথসভায় মহিলা নেত্রীরা বক্তব্য রাখছেন। ধর্মতলায় লাগানো হবে জায়ান্ট স্ক্রিন। এছাড়া মে আই হেল্প ইউ নাম দিয়ে শহর জুড়ে প্রচুর ক্যাম্প করা হবে। ক্যাম্পে যুব নেতারা থাকবেন। পুরনো কর্মীদের দেখা যাচ্ছে। তাঁদের নিয়ে এসেছেন মমতা। কাজে লাগানো হচ্ছে। মমতার ডাক পেয়ে তাঁদের উৎসাহ বেড়ে গেছে। অভিমান ভুলে গেছেন। ‌

চলছে ২১ জুলাইয়ের সভা–মঞ্চ তৈরির কাজ। বৃহস্পতিবার। ছবি: বিজয় সেনগুপ্ত

জনপ্রিয়

Back To Top