আজকালের প্রতিবেদন: হাসপাতালের রোগী কল্যাণ সমিতিতে এবার থেকে জুনিয়র ডাক্তারদের দু’‌জন করে প্রতিনিধি থাকবেন। স্বাস্থ্য দপ্তর একটি নির্দেশিকা জারি করে জানিয়েছে, আপাতত কলকাতা মেডিক্যাল, এনআরএস, আর জি কর, ন্যাশনাল মেডিক্যাল, এসএসকেএম, মেদিনীপুর, বর্ধমান, বাঁকুড়া, উত্তরবঙ্গ, সাগর দত্ত, মালদা, মুর্শিদাবাদ এবং কল্যাণীর জেএনএম হাসপাতালের রোগী কল্যাণ সমিতিতে দু’‌জন করে জুনিয়র ডাক্তার প্রতিনিধি রাখা হবে। ইনটার্ন, হাউস স্টাফ, পোস্ট গ্র‌্যাজুয়েট ট্রেনি কিংবা সার্ভিস ডক্টরসের মধ্যে থেকে যে কোনও দু’‌জন প্রতিনিধি থাকবেন। মেডিক্যাল কলেজগুলির ক্ষেত্রে অধ্যক্ষ প্রতিনিধি মনোনীত করবেন। মেডিক্যাল কলেজ ছাড়া অন্যান্য হাসপাতালের ক্ষেত্রে রোগী কল্যাণ সমিতির সদস্য সচিব মনোনীত করতে পারবেন। জুনিয়র ডাক্তারদের নিরাপত্তা সুনিশ্চিত করা ছাড়াও অন্যতম দাবি ছিল তাঁদের কোনও প্রতিনিধিকে রোগী কল্যাণ সমিতিতে রাখা। 
বিভিন্ন জেলা হাসপাতাল ও মেডিক্যাল কলেজ মিলিয়ে ২৮ জন গ্রেড ওয়ান অ্যাসিস্ট্যান্ট সুপারের (‌নন–‌মেডিক্যাল) পদোন্নতি হল। তাঁদের ডেপুটি সুপার (‌নন–‌মেডিক্যাল) পদে নিয়োগ করা হয়। স্বাস্থ্য দপ্তর একটি নির্দেশনামা জারি করে এ কথা ঘোষণা করেছে। অ্যাসিস্ট্যান্ট সুপারদের এটি দীর্ঘ দিনের দাবি ছিল। একাধিকবার পদোন্নতির জন্য স্বাস্থ্য ভবনে জানিয়েছিলেন। দপ্তর সূত্রে খবর, নতুন করে ডেপুটি সুপার (‌নন–‌মেডিক্যাল)‌ এই পদ তৈরি করা হল। বিভিন্ন মেডিক্যাল কলেজে ডেপুটি সুপার পদে যে চিকিৎসকরা রয়েছেন, তাঁরা হাসপাতালের রোগী পরিষেবা সংক্রান্ত সব কাজ সামলাতেন। পাশাপাশি তাঁরা প্রশাসনিক কাজকর্মও দেখতেন। অন্যদিকে নন–‌মেডিক্যাল ডেপুটি সুপাররা মূলত হাসপাতালের প্রশাসনিক কাজ দেখভাল করবেন। হাসপাতাল কিংবা মেডিক্যাল কলেজ কর্তৃপক্ষকে নন–মেডিক্যাল সংক্রান্ত সমস্ত কাজে সহায়তা করবেন তাঁরা। চিকিৎসা সংক্রান্ত বিষয় ছাড়া হাসপাতালে বিভিন্ন বিভাগের কাজ, স্বাস্থ্য ভবনে জরুরি ফাইল নিয়ে যাওয়া–‌সহ একাধিক কাজের দায়িত্ব সামলাতে হবে। ফলে মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের প্রশাসনিক কাজে অনেক সুবিধে হবে।‌

জনপ্রিয়

Back To Top