আজকালের প্রতিবেদন- বিভিন্ন বেসরকারি স্কুলে ফি–বৃদ্ধি নিয়ে অভিভাবকদের বিক্ষোভ চলার মাঝেই নজিরবিহীন সিদ্ধান্ত নিল হাওড়ার সেন্ট জোসেফ স্কুল। করোনা পরিস্থিতিতে এপ্রিল থেকে যতদিন স্কুল বন্ধ থাকবে, পড়ুয়াদের কাছ থেকে তত মাসের ফি নেওয়া হবে না। পাশাপাশি বার্ষিক ফি–সহ অন্যান্য খাতের ফি–ও অর্ধেক করা হয়েছে।
স্কুলটির তরফেবলা হয়েছে, এপ্রিল থেকে শুরু করে যতদিন না ফের স্কুল চালু হচ্ছে, ততদিন সমস্ত পড়ুয়ার ফি মকুব করা হল। অর্থাৎ স্কুল বন্ধের মাসগুলির ফি নেওয়া হবে না। বার্ষিক ফি এবং অন্যান্য ফি–ও ৫০ শতাংশ কমানো হল। বলা হয়েছে, এই কঠিন সময়ে মানবিক কারণে স্কুল অভিভাবকদের পাশে দাঁড়াতে চায়।
শহর জুড়ে যেখানে বিভিন্ন স্কুলের ফি–বৃদ্ধি নিয়ে অভিভাবকদের অসন্তোষ ও বিক্ষোভের পারদ চড়ছে, সেখানে হাওড়ার স্কুলটির এই সিদ্ধান্তে শোরগোল পড়ে গেছে। প্রত্যেকেই সাধুবাদ জানাচ্ছেন। গত কয়েকদিন ধরেই জি ডি বিড়লা, সেন্ট স্টিফেন্স, ইন্দাস ভ্যালি, স্কটিশ চার্চ–সহ বিভিন্ন স্কুলের অভিভাবকরা বিক্ষোভ দেখাচ্ছেন। অভিভাবকদের বক্তব্য, নিতে হলে স্কুল এই পরিবর্তিত পরিস্থিতিতে শুধু টিউশন ফি–টুকুই নিক। ডেভেলপমেন্ট, কম্পিউটার–সহ অন্যান্য ফি দেওয়ার মতো অবস্থায় অনেকেই নেই। এগুলো পরে নেওয়া হোক। প্রসঙ্গত, শিক্ষামন্ত্রী পার্থ চ্যটার্জিও বারবার এই বেসরকারি স্কুলগুলিকে করোনা পরিস্থিতিতে ফি না বাড়াতে এবং অপ্রয়োজনীয় ফি এখনই না নেওয়ার আবেদন করেছিলেন। স্কুল শিক্ষা দপ্তরের পক্ষ থেকে এ নিয়ে নির্দেশিকাও জারি করা হয়েছে।‌

জনপ্রিয়

Back To Top