আজকালের প্রতিবেদন: নোয়াপাড়া থেকে বিমানবন্দর হয়ে বারাসত পর্যন্ত মেট্রো প্রকল্পের নিউ ব্যারাকপুর পর্যন্ত কাজ কিছুদিনের মধ্যেই শুরু করতে চান মেট্রো কর্তৃপক্ষ। যশোর রোডের নীচ দিয়ে মেট্রোর লাইন যাবে বলেই জমির প্রয়োজন হবে। কোনও সমস্যা হলে রাজ্যের সহযোগিতা প্রয়োজন। শুক্রবার রাজ্যের সমস্ত মেট্রো প্রকল্প নিয়ে মুখ্যসচিব মলয় দে বৈঠকে বসেছিলেন। এই বিষয়টি নিয়ে আলোচনা হয়েছে। ছিলেন মেট্রো এবং রেলওয়ে বিকাশ নিগম লিমিটেডের কর্তারা। ছিলেন নগরোন্নয়ন সচিব সুব্রত গুপ্ত, পরিবহণ সচিব নারায়ণস্বরূপ নিগম, কলকাতা পুরসভার কমিশনার খলিল আহমেদ এবং পুলিশ কর্তারা। বৈঠকে রাজ্য সবরকম সহযোগিতার আশ্বাস দিয়েছে। জোকা–বিবাদী বাগ মেট্রো প্রকল্পে জোকায় কারশেড তৈরির জমি‌জট খুলে গেছে। কমান্ড হাসপাতালের কাছে মেট্রো স্টেশন হবে না। তবে মাঝেরহাট স্টেশনের কাছে একটা স্টেশন হবে। জোকা–বিবাদী বাগ প্রকল্পের যে অংশ খিদিরপুরের পর মাটির নীচের কাজ আগামী বছরের গোড়াতেই শুরু হবে। 
অন্যদিকে ইস্ট–ওয়েস্ট মেট্রো করিডরের সঙ্গে গড়িয়া–বিমানবন্দর মেট্রোর হলদিরামের কাছে সংযুক্তিকরণের  জটিলতাও মিটে গেছে। গড়িয়া–বিমানবন্দর মেট্রো প্রকল্পের জন্য জমি দেবে বিমানবন্দর কর্তৃপক্ষ। ইস্ট–ওয়েস্ট, জোকা–বিবাদী বাগ এবং গড়িয়া–বিমানবন্দর প্রকল্পের কাজ ২০২২ সালের মধ্যেই শেষ হয়ে যাবে। প্রকল্পগুলি শেষ হলে কলকাতা–সহ শহরতলির মধ্যে যোগাযোগ ব্যবস্থা আমূল বদলে যাবে। সরাসরি হাওড়া এবং উত্তর ২৪ পরগনা থেকে কলকাতার নানা গন্তব্যে যাত্রীরা দ্রুত পৌঁছে যাবেন। ‌‌‌

জনপ্রিয়

Back To Top