আজকালের প্রতিবেদন‌‌‌‌: বিভিন্ন জটিলতার কারণে মেট্রোর বকেয়া প্রকল্পগুলোর কাজ কোথাও কোথাও থমকে রয়েছে। এই সমস্যার সমাধান করে প্রকল্পগুলির কাজ দ্রুত শেষ করতে বৈঠক ডাকল রাজ্য সরকার। কাল, শুক্রবার মেট্রো কর্তৃপক্ষের সঙ্গে নবান্নে বৈঠকে বসবেন মুখ্য সচিব মলয় দে। এই মুহূর্তে রাজ্যে তিনটি বড় মেট্রো প্রকল্পের কাজ চলছে। জোকা–বিবাদী বাগ, ইস্ট–ওয়েস্ট এবং গড়িয়া– দমদম বিমানবন্দর— এই তিন প্রকল্পই ২০২২ সালের মধ্যে চালু করতে চান মেট্রো কর্তৃপক্ষ। তাই ছোটখাটো জটের কারণে যে সব জায়গায় কাজ থমকে আছে, সেখানে দ্রুত সমাধান চাইছে রাজ্য সরকারও। যেমন, জোকা–বিবাদী বাগ মেট্রো প্রকল্পের ক্ষেত্রে জোকায় কারশেড তৈরির কাজ সামান্য জমিজটের কারণে আটকে আছে। এই সামান্য জমিটুকু যাতে দ্রুত মেট্রোর হাতে তুলে দেওয়া যায় তার চেষ্টা করছে রাজ্য সরকার। পাশাপাশি মোমিনপুরের কাছে মেট্রো প্রকল্পের মাঝে পড়া একটি বাড়ি অধিগ্রহণ হয়ে গিয়েছে। তবে আইনি জটিলতায় তা ভাঙা যাচ্ছে না। 
অন্যদিকে, গড়িয়া–বিমানবন্দর মেট্রো প্রকল্পে বিমানবন্দরের কাছে মেট্রোর কারণে রাস্তা সরু হয়ে যাচ্ছে। এই সমস্যার সমাধানে বিমানবন্দর কর্তৃপক্ষের কাছে কিছু জমি চেয়েছে রাজ্য। এইসব ছোটখাটো সমস্যার সমাধান করতেই রাজ্য সরকার বৈঠক ডেকেছে। সংশ্লিষ্ট সব কর্তৃপক্ষকে নিয়েই এই বৈঠক হবে। অতীতে ওই সমন্বর বৈঠক করেই জোকা–বিবাদী বাগ প্রকল্প নিয়ে সেনাবাহিনীর সঙ্গে সমস্যা মিটিয়ে ফেলতে পেরেছে রাজ্য সরকার। যেমন, কম্যান্ড হাসপাতালের কাছে জোকা–বিবাদী বাগ মেট্রো প্রকল্পের কোনও স্টেশন হবে না। ওই জায়গার কিছুটা আগে থেকে বিবাদী বাগ পর্যন্ত মাটির তলা দিয়েই মেট্রো যাবে।
ইস্ট–ওয়েস্ট এবং গড়িয়া–বিমানবন্দর মেট্রো  সংযুক্তিকরণ নিয়ে যে সমস্যা ছিল তারও ইতিমধ্যেই সমাধান হয়ে গেছে। এইসব মেট্রো চালু হয়ে গেলে কলকাতা–সহ শহরতলির মধ্যে যোগাযোগ ব্যবস্থায় আমূল পরিবর্তন আসবে। হাওড়া স্টেশন থেকে বিমানবন্দর, জোকা থেকে মূল কলকাতায় মানুষ খুব সহজেই যাতায়াত করতে পারবেন।‌‌

জনপ্রিয়

Back To Top