আজকালের প্রতিবেদন- পেঁয়াজ অগ্নিমূল্য।‌ সবজিও কমবেশি তাই। পরিস্থিতি দেখতে নিজেই এবার পথে নামলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জি। সোমবার সকালে কালীঘটের বাড়ি থেকে সটান হাজির হলেন যদুবাবুর বাজারে। দক্ষিণ কলকাতার ওই বাজার সবে তখন জমে উঠেছে। সাতসকালে মুখ্যমন্ত্রীকে দেখে ঔৎসুক্য বেড়ে যায় সাধারণ মানুষের। স্বয়ং মুখ্যমন্ত্রী বাজারে খোঁজ নিতে এসেছেন দেখে আশ্বস্তও হন অনেকেই।  বাজারে ঢুকেই প্রথমেই আলু, পেঁয়াজের ডালার দিকে এগিয়ে যান মমতা। জানতে চান কত টাকায় বিক্রি হচ্ছে। বিক্রেতাদের কয়েকজন জানান, কেজি পিছু পেঁয়াজ ১৪০ থেকে ১৫০ টাকায় বিক্রি করা হচ্ছে। মমতা বলেন, ‘‌কোথা থেকে আপনারা পেঁয়াজ কিনছেন?‌’‌ ভিড়ের মধ্যে উঠে এল জনৈক পাইকারি বিক্রেতা মনসা পালের নাম।  মুখ্যমন্ত্রী ‌ম‌নসা পালের নাম লিখে নিতে বলেন আধিকারিকদের। কেন এত দাম সে সম্পর্কে খোঁজ নিতে বলেন। প্রসঙ্গত, গত ৪ মাস ধরে খোলা বাজারে পেঁয়াজের দর ক্রমশ বেড়েছে। জোগান ও চাহিদার বিরাট পার্থক্য থাকায় কেন্দ্রের তরফেও কোনও সুরাহা হয়নি। এদিনই খড়্গপুরে এক অনুষ্ঠানে সবজির দাম বাড়ায় কেন্দ্রে মোদি সরকারকে একহাত নিয়েছেন মমতা। বলেছেন, ‘‌এই বিষয়টি কেন্দ্রের আওতায়। দাম নিয়ন্ত্রণ করতে পারছে না ওরা। আমরা ২০০ মেট্রিক টন পেঁয়াজ চেয়েছিলাম। মাত্র ২০ মেট্রিক টন দিয়েছে।’‌ মমতার বক্তব্য, ‌সব মাটিতে পেঁয়াজ চাষ হয় না। তাও আমাদের রাজ্যে চাষ হচ্ছে। আরও বেশি উৎপাদনের চেষ্টা চলছে। মানুষকে স্বস্তি দিতে ৫৯ টাকায় পেঁয়াজ বিক্রি করার ব্যবস্থা করেছে রাজ্য সরকার। যদুবাবুর বাজারে গিয়ে শুধু পেঁয়াজ নয়, অন্য সবজির দাম নিয়েও খোঁজ করেন মমতা। জানতে চান কোথা থেকে তাঁরা এই সবজি আনছেন। সুফল বাংলার গাড়ি ওই এলাকায় আসে কিনা সে বিষয়েও খোঁজ নেন মুখ্যমন্ত্রী।‌ জানতে চান ৫৯ টাকা করে পেঁয়াজ মিলছে কিনা।‌‌

সকালে যদুবাবু বাজারে মুখ্যমন্ত্রী। সোমবার। ছবি:‌ আজকাল

জনপ্রিয়

Back To Top