আজকালের প্রতিবেদন- লকডাউনের জেরে কলকাতা পুরসভার কোষাগারে ধাক্কা। রাজস্ব আদায় তলানিতে। করোনা আক্রমণে লকডাউন জারি করার পর অফিস বন্ধ করে দেওয়া হয়। শুরুতে পুরসভারও জরুরি দপ্তরগুলি ছাড়া অন্য দপ্তরগুলি বন্ধ রাখা হয়। পুরসভার প্রধান কার্যালয়–‌সহ রাজস্ব আদায় কেন্দ্রগুলিতে সশরীরে কর জমা দেওয়ার ক্ষেত্রে নিষেধাজ্ঞা ছিল। ধীরে ধীরে লকডাউন শিথিল হওয়ার সঙ্গে সঙ্গে রাজস্ব আদায়ে উদ্যোগী পুরসভা। এনিয়ে জরুরি বৈঠকে বসেন পুর প্রশাসকমণ্ডলীর সদস্য অতীন ঘোষ। বৃহস্পতিবার তিনি জানান, গত বছর এইসময় অর্থাৎ ১ এপ্রিল থেকে ২৫ মে–‌র মধ্যে পুরসভার আয় ছিল ২২৭ কোটি টাকা। আর এ বছর একই সময়ে পুরসভার আয় হয়েছে মাত্র ৩৯ কোটি টাকা। খুলে দেওয়া হচ্ছে পুরসভার প্রতিটি কর আদায় কেন্দ্রগুলি। ২০টি কর আদায় কেন্দ্রের মধ্যে ১৬টি  ইতিমধ্যে খুলে দেওয়া হয়েছে। বাকি ৪টিও কয়েকদিনের মধ্যে খুলে দেওয়া হবে। এছাড়া অনলাইনেও কর জমা দিতে পারা যাবে। খোলা থাকছে ই–সেন্টারগুলি। শহরবাসীরা তাঁদের সম্পত্তি কর পুরসভার কাউন্টারে কিংবা অনলাইনে কর জমা দিতে পারবেন। পাশাপাশি রাজস্ব জমার ক্ষেত্রে কিছু রিবেট দেওয়া হয়েছিল। যাঁরা সেই রিবেটের সুবিধা পেতেন, তাদের সেই সময়সীমা বাড়িয়ে দেওয়া হয়েছে। একইসঙ্গে কর সংক্রান্ত যে কোনও সমস্যা কিংবা অভিযোগ থাকলে আবেদনও এখন করা যাবে। 

জনপ্রিয়

Back To Top