আজকালের প্রতিবেদন
বাগুইআটির দেশবন্ধুনগরে ঝিলপাড় এলাকায় নর্দমা থেকে রাজা দাস নামে এক যুবকের রক্তাক্ত দেহ উদ্ধার হল।  তাকে পিটিয়ে খুন করা হয়েছে বলে অভিযোগ। মাথায় একাধিক আঘাতের চিহ্ন রয়েছে। 
দেশবন্ধুনগরের ঝিলপাড় এলাকারই বাসিন্দা রাজা দাস। দীর্ঘদিন ধরে বাবা–‌মায়ের সঙ্গে একটি আবাসনে থাকতেন, অ্যাপ–‌ক্যাবের ব্যবসা করতেন। বুধবার সকালে স্থানীয় মহিলারা প্রাতর্ভ্রমণে বেরিয়ে নর্দমায় এক যুবককে পড়ে থাকতে দেখেন। এলাকাটি বিধাননগর পুরনিগমের ১০ নম্বর ওয়ার্ডের মধ্যে। ওয়ার্ড সুপারভাইজারকে ঘটনার কথা জানান মহিলারা। তিনি খবর দেন স্থানীয় কাউন্সিলর প্রণয় রায়কে। তিনি মৃত যুবককে শনাক্ত করেন।
ঘটনাস্থলের ১০০ মিটার দূরেই রাজার বাড়ি। আশপাশে রক্তের চিহ্ন ছিল। টেনে‌হিঁচড়ে দেহটি নর্দমায় ফেলে দেওয়া হয়ে। একটি বিয়ের অনুষ্ঠানের জন্য মঙ্গলবার রাতে সেখানে আলো লাগানো হচ্ছিল। চিৎকার বা মারধরের আওয়াজ পাননি কেউ। রাজা হাসিখুশি ও মিশুকে বলে পরিচিত এলাকায়। 
স্থানীয় বাসিন্দারা জানান, মঙ্গলবার সন্ধে ৭টা নাগাদ বাড়ি থেকে বেরিয়েছিলেন রাজা। রাতে বাবা স্বপন দাসকে ফোনে তিনি বলেন, ‘‌অভিজিতের বাড়িতে রয়েছি।’‌ অভিজিৎ নামে ছেলের ওই বন্ধুর সঙ্গে তখন ফোনে কথা বলেন বাবা। পরিবার সূত্রে খবর, ছেলেটি অভিজিৎ নয় বলেই তাঁর মনে হয়েছিল। এরপর ফোনের যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন হয়ে যায়। সারা রাত আর বাড়ি ফেরেননি রাজা। এদিকে তদন্তে পুলিশ জানতে পেরেছে, দু‌টি গাড়ি ভাড়া নিয়ে ব্যবসা শুরু করেছিলেন মৃত যুবক। কিন্তু কিছুদিন ব্যবসা বন্ধ ছিল। ফলে রোজগার ছিল না তাঁর। অন্যদিকে মায়ের চিকিৎসার জন্য একজনের কাছ থেকে টাকা ঋণ নিয়েছিলেন তিনি। 

জনপ্রিয়

Back To Top