কাকলি মুখোপাধ্যায়- কথায় আছে, ‘‌চ্যারিটি বিগিন্‌স অ্যাট হোম’। বিষয়টা বড় করে দেখলে বলা যেতে পারে, ভাল যা–‌কিছু শুরু করার, নিজের ঘর থেকেই সেটা করতে হয়। কলকাতা পুরসভা এবার যেন সেটাই করে দেখাল। মহানাগরিক ফিরহাদ হাকিমও নিজের ৮২ নম্বর ওয়ার্ড থেকে কিছুদিন আগেই জোরালো বার্তা দিয়েছিলেন প্লাস্টিক–বর্জনের। পথে নেমে  প্লাস্টিক ক্যারিব্যাগের বদলে চটের থলি তুলে দিয়েছিলেন নাগরিকদের হাতে। এবার খোদ পুরসভার অন্দরেই প্লাস্টিক–‌বর্জনের কাজ করে দেখাতে চাইলেন।
হ্যঁা, পুরসভার অন্দরে এবার থেকে প্লাস্টিক নয়, কাচের বোতলে জল মিলবে। প্লাস্টিক ব্যাগ, বোতল ব্যবহার বন্ধের নির্দেশ আগেই দিয়েছিল কলকাতা পুরসভা। পুরসভার প্রধান কার্যালয়ে বসানো হয়েছে প্লাস্টিক বোতল ক্রাশিং মেশিন। এবার প্লাস্টিকের বোতল ব্যবহার পুরোপুরি বন্ধ করতে আনানো হল কাচের বোতল। এবং, কলকাতার মহানাগরিকের ঘর থেকেই শুরু হয়ে গেল পরিবেশবান্ধব এই পরিবর্তন। খুব শিগগিরই প্রতিটি দপ্তরের ঘরে ঘরে পৌঁছে দেওয়া হবে কাচের বোতল। মেয়রের দপ্তরের কোনও টেবিলে আর দেখা মিলবে না প্লাস্টিক বোতলের। পুরসভা সূত্রে খবর, বাইরে থেকে যঁারা কলকাতা পুরসভায় কাজেকর্মে নিয়মিত আসেন, তঁাদের ব্যবহৃত প্লাস্টিকের বোতলও এখন থেকে যত্রতত্র নয়, ফেলতে হবে ওই ক্রাশিং মেশিনেই। আগামী দিনে প্রতিটি বরোতেই প্লাস্টিক রুখতে ওই ধরনের মেশিন বসানোর চিন্তা–‌ভাবনা রয়েছে পুর–‌প্রশাসনের। 

এই রকমই বোতল পুরদপ্তরে 

জনপ্রিয়

Back To Top