আজকাল ওয়েবডেস্ক:‌ কলকাতা মেট্রোর ক্ষেত্রেও বিলগ্নীকরণের পথে হাঁটতে চলেছে কেন্দ্র!‌ রেলের হাতে থাকা কলকাতা মেট্রোর ‘অ্যাসেট মনিটাইজেশন’ সম্পত্তির নগদীকরণের বিষয়ে আলোচনা শুরু হয়ে গিয়েছে কেন্দ্র সরকারের অন্দরে। সংস্থার সম্পত্তির মূল্য নির্ধারণের কাজ নাকি শীঘ্রই শুরু হবে। এই বিষয়টিই আগামী দিনে কলকাতা মেট্রোর বিলগ্নিকরণের জল্পনাকে উসকে দিয়েছে।
চলতি মাসেই কেন্দ্রীয় বাজেটে অর্থমন্ত্রী নির্মলা সীতারামন ‘স্ট্র্যাটেজিক ডিসইনভেস্টমেন্ট’ বা কৌশলগত বিলগ্নিকরণের মাধ্যমে ২০২৪ সালের মধ্যে ২ লক্ষ কোটি টাকা আয়ের লক্ষ্যমাত্রার কথা ঘোষণা করেছিলেন। বুধবার প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদিও ঘোষণা করেছেন, ১০০ টি রাষ্ট্রায়ত্ত সংস্থার বিলগ্নিকরণ করে ২ লক্ষ কোটি টাকা তোলা হবে। সম্প্রতি এক উচ্চপর্যায়ের বৈঠকে সে বিষয়ে একপ্রস্থ আলোচনা হয়েছে। বিভিন্ন মন্ত্রকের ৩০ টি সংস্থার নামের তালিকাও তৈরি করা হয়েছে। কলকাতা মেট্রোর নামও সেই তালিকায় রয়েছে বলেই জানা গিয়েছে। পাশাপাশি রয়েছে দিল্লি মেট্রোর নামও। এই ৩০ টি সংস্থার মূল্য নির্ধারণের বিষয়ে বিশদ তথ্য নীতি আয়োগের কাছে জমা দেওয়ার জন্য সংশ্লিষ্ট মন্ত্রকগুলিকে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। কেন্দ্র সরকার যে সব ক্ষেত্রেই বেসরকারীকরণ এবং সম্পদের নগদীকরণের বিষয়টিকে এগিয়ে নিয়ে যেতে চাইছে সে বিষয়টি বাজেটেই স্পষ্ট করে দিয়েছিলেন নির্মলা। বুধবার প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি এই বিষয় সংক্রান্ত এক বৈঠকে সেই বিষয়টিকেই কার্যত সিলমোহর দিয়েছেন। রেলের ক্ষেত্রে স্টেশন, ফ্রেট করিডর এবং রুট ভিত্তিক ক্ষেত্রে নগদীকরণ এবং বেসরকারীকরণের কথা ভাবা হচ্ছে বলেই সূত্রের খবর।
জানা গিয়েছে কলকাতা মেট্রোর নাম, সম্পত্তি নগদীকরণের তালিকায় রাখা হলেও বিষয়টি নিয়ে এখনই তাড়াহুড়ো করতে চাইছে না কেন্দ্র। আপাতত মূল্য নির্ধারণ এবং কীভাবে নগদীকরণ করা যায়, সেই প্রাথমিক রূপরেখা তৈরির পরিকল্পনা রয়েছে। এটা ঘটনা রেল বহুদিন আগে থেকেই কলকাতা মেট্রোয় বিলগ্নিকরণের বিষয়ে ভাবনাচিন্তা করলেও নানা জটে তা আটকে গিয়েছে। তবে এবার বহুক্ষেত্রেই বিলগ্নিকরণের বিষয় নিয়ে কেন্দ্র সরকার যেভাবে উদ্যোগী হয়েছে তাতে এ বিষয়েও জট কাটবে বলে রেল কর্তারা আশা করছেন। 
 

জনপ্রিয়

Back To Top