আজকালের প্রতিবেদন- আরসালান পারভেজের জাগুয়ার গাড়ি দুর্ঘটনা–‌কাণ্ডে তদন্তে নামল কলকাতা পুলিশের গোয়েন্দা বিভাগ। সোমবার শেক্সপিয়র সরণি থানায় গোয়েন্দা বিভাগের একটি দল যায় তদন্তে। শুক্রবার রাতে ছুটছিল ১২০ কিলোমিটার বেগে। সম্ভবত সে কারণেই দু–‌দু’‌বার সে সিগন্যাল ভেঙে গাড়ি চালিয়েছিল। দুর্ঘটনার পরে গাড়ির ফরেন্সিক তদন্তে এমন তথ্যই উঠে এসেছে। ২০১৮ সালের নভেম্বর মাস থেকে চলতি বছরের জুলাই মাস পর্যন্ত জাগুয়ার গাড়ি চালিয়ে ৪৮ বার ট্রাফিক নিয়ম ভেঙেছে।
তদন্তে পুলিশ জানতে পেরেছে, দুর্ঘটনার পর সেদিন রাতে আরসালান পারভেজ পায়ে হেঁটেই বাড়ি ফেরে। বাবা আখতার পারভেজকে সব ঘটনা জানায়। সেদিন রাতে আখতার পারভেজ তাঁর এক নিকট বন্ধুকে ফোনে বিস্তারিত জানান। তাঁর পরামর্শেই শনিবার আরসালান পারভেজ থানায় গিয়ে আত্মসমর্পণ করে। পুলিশ গ্রেপ্তার করে। তাঁর বিরুদ্ধে অনিচ্ছাকৃত খুনের মামলা–‌সহ বেশ কয়েকটি ধারায় মামলা শুরু হয়েছে। ২৯ আগস্ট পর্যন্ত তাঁকে পুলিশ হেপাজতে রাখার নির্দেশ দিয়েছে আদালত। 
আখতার পারভেজের স্ত্রীর নাম আয়েষা পারভেজ। বড় ছেলের নাম রাঘিব। কনভেন্ট স্কুলে পড়াশশোনা। আরসালান মেজ ছেলে। পড়াশশোনা এডিনবরা বিশ্ববিদ্যালয়ে। সকলের ছোট একমাত্র মেয়ে আতুফা হেরিটেজ স্কুলের ছাত্রী। আরসালান শব্দের বাংলা অর্থ ‘‌ভাগ্যবান’‌। জানা গেছে, আরসালানের জন্মের পরই পারভেজের পরিবারের নাকি যথেষ্ট উন্নতি হয়। আরসালানের এখন বয়স ২২। সে বিনয়ী, নম্র, সদালাপী হাসিখুশি। তিন ছেলেমেয়ের মধ্যে মা আয়েষা তাঁকেই নাকি সবচেয়ে বেশি ভালবাসতেন। এ সমস্ত তথ্যই স্থানীয় সূত্রে জানতে পেরেছে পুলিশ। শুধুমাত্র কলকাতায় আরসালানের বিরিয়ানির দোকান রয়েছে ৭টি। পার্ক সার্কাস সেভেন পয়েন্ট, সার্কাস অ্যাভিনিউ, মির্জা গালিব স্ট্রিট, হাতিবাগান, রুবি–‌গোলপার্ক, লেকটাউন–‌যশোর রোড, চিনার পার্কে। দুবাইতেও রয়েছে এই রেস্তোরাঁর একটি দোকান। এক বছর আগেই চালু হয়েছে। মুম্বইতেও একটি রেস্তোরাঁ খোলার চেষ্টা চলছে। মালিক আখতার পারভেজ ব্যস্ত থাকেন। তাই ব্যবসার সমস্ত দিকটাই দেখেন স্ত্রী আয়েষা।
৩৭ সৈয়দ আমির আলি অ্যাভিনিউয়ের দু’‌দিকে দুটি বিশাল ফ্ল্যাট। বিলাসবহুল করে গড়ে তোলা। চারদিকে সিসি টিভি। তাতেই নজরদারি চলে। ১৫ বছর ধরে রেস্তোরাঁর ব্যবসা চলছে। পার্ক সার্কাস সেভেন পয়েন্টেই প্রথম ব্যবসা খোলা হয়। আগে খিদিরপুরে ফ্যান্সি মার্কেটে পোশাকের ব্যবসা ছিল। বিভিন্ন মোগলাই খানা সুলভ মূল্যে খাদ্যরসিকদের কাছে পৌঁছে দেওয়াতেই আরসালানের জনপ্রিয়তা। গুয়াহাটিতে আরসালানের এক প্লেট স্পেশ্যাল বিরিয়ানি এখন দাম পড়ে ৫৯৯ টাকা।
‌পুলিশ ইতিমধ্যেই ঘটনাস্থলে গিয়ে পরিস্থিতি খতিয়ে দেখেছে। আরসালান পারভেজকে জেরা করে জানতে চাইছে, বৃষ্টিভেজা সেদিন রাতে সে কোথা থেকে ফিরছিল। এত গতিতেই–‌বা কেন গাড়ি চালাচ্ছিল। যদিও গতিতেই সে গাড়ি চালাতে ভালবাসে। আড়াআড়ি ভাবে মার্সিডিজ গাড়িকে ধাক্কা মারার পরেও তার গাড়ি থামল না কেন?‌ তদন্তকারীদের কাছে সেটাও একটি প্রশ্ন। সিসি টিভি ফুটেজ দেখে গোটা বিষয়টি জানার চেষ্টা করছে পুলিশ।

 

দুর্ঘটনার পর জাগুয়ার। ফাইল ছবি

জনপ্রিয়

Back To Top