আজকালের প্রতিবেদন- যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয়ের কলা বিভাগের স্নাতক স্তরের ভর্তিপ্রক্রিয়া নিয়ে জট কাটল না। প্রবেশিকা পরীক্ষা নিয়ে পড়ুয়া ভর্তির ক্ষেত্রে ইংরেজি এবং তুলনামূলক সাহিত্য বিভাগকে তদন্ত কমিটির সুপারিশ অনুযায়ী সিদ্ধান্ত পুনর্বিবেচনা করতে বলল কর্মসমিতি (‌‌ইসি)‌‌। সেক্ষেত্রে পড়ুয়া ভর্তির ক্ষেত্রে প্রবেশিকা এবং উচ্চমাধ্যমিক বা তার সমতুল পরীক্ষায় প্রাপ্ত নম্বরকে সমান গুরুত্ব দেওয়ার কথা বলা হয়েছে। সোমবার ছিল ইসি–র বৈঠক। এই দুটি বিভাগের নেওয়া আগের সিদ্ধান্ত পুনর্বিবেচনার জন্য বিষয়টি ফের ভর্তি কমিটির কাছে পাঠানো হয়েছে। 
গত বছর কলা বিভাগের প্রবেশিকা পরীক্ষা নিয়ে চূড়ান্ত বিতর্ক তৈরি হওয়ায় তদন্ত কমিটি গঠিত হয়। কমিটির সুপারিশ, প্রবেশিকা নেওয়া হলে মেধা–তালিকা তৈরির ক্ষেত্রে ৫০ শতাংশ নম্বর প্রবেশিকা এবং বাকি ৫০ শতাংশ নম্বর উচ্চমাধ্যমিক বা তার সমতুল পরীক্ষায় প্রাপ্ত নম্বর থেকে যেন নেওয়া হয়। তদন্ত কমিটির এই সুপারিশ ইসি–র বৈঠকে গৃহীত হয়। বাংলা, ইতিহাস, দর্শন এবং রাষ্ট্রবিজ্ঞান এই সুপারিশ মেনে সিদ্ধান্ত নেয়।  কিন্তু ইংরেজি ও তুলনামূলক সাহিত্য বিভাগ শুধুমাত্র প্রবেশিকা পরীক্ষায় প্রাপ্ত নম্বরের ভিত্তিতেই পড়ুয়া ভর্তির সিদ্ধান্ত নেয়। এই সিদ্ধান্ত পুনর্বিবেচনার কথাই এদিন বলেছে ইসি। তার আগে ৫ এপ্রিল এই দুটি বিভাগের শিক্ষকদের সঙ্গে আলোচনায় উপাচার্য সুরঞ্জন দাসও একই কথা বলেছিলেন। ওই বৈঠকে উচ্চমাধ্যমিক বা তার সমতুল পরীক্ষায় প্রাপ্ত নম্বর থেকে ৩০ বা ৪০ শতাংশ নিয়ে মেধা–তালিকা তৈরির প্রস্তাব উঠে আসে। 
সম্প্রতি বিশ্ববিদ্যালয়ের বিভিন্ন সেন্টার ও স্কুল পরিচালিত কোর্সের ফলপ্রকাশে আর্থিক লেনদেনের অভিযোগ ওঠে। নাম জড়ায় পরীক্ষা নিয়ামক দপ্তরের। পরীক্ষা নিয়ামক সাত্যকি ভট্টাচার্যকে আপাতত ছুটিতে যেতে বলা হয়েছে। গোটা বিষয়টি তদন্তের জন্য অবসরপ্রাপ্ত বিচরাপতি প্রণব চ্যাটার্জি, গ্রিন বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য আশুতোষ ঘোষ এবং অধ্যাপক অজিতাভ রায়চৌধুরিকে নিয়ে তিন সদস্যের কমিটি গঠন করা হয়েছে। যত দিন তদন্ত চলবে তত দিন ছুটিতে থাকতে বলা হয়েছে বলে জানিয়েছেন রেজিস্ট্রার স্নেহমঞ্জু বসু।
এদিন ইঞ্জিনিয়ারিংয়ে রাজ্যের পড়ুয়াদের জন্য ৯০ শতাংশ আসন সংরক্ষণের বিষয়টি নিয়ে পড়য়াদের সঙ্গে একপ্রস্থ আলোচনা করেন ডিন চিরঞ্জীব ভট্টাচার্য। সামনেই পরীক্ষা, তাই সব পড়ুয়ার মতামত জানা সম্ভব হয়নি বলে জানায় ইঞ্জিনিয়ারিংয়ের ছাত্র সংসদ ফেটসু। এ নিয়ে আলোচনার জন্য আরেকটি বৈঠক ডাকার দাবি জানিয়েছে তারা। ‌‌

জনপ্রিয়

Back To Top