আজকাল ওয়েবডেস্ক: দু’‌মাস বাকি দুর্গা পুজোর। যার ষোলো আনাই বাঙালিয়ানায় ভরপুর। করোনা থাকুক, না থাকুক, বাঙালি এই উৎসবে মাতবেই। কিন্তু সংক্রমণ বাঁচিয়ে। সেটা কীভাবে সম্ভব, তার পথ খোঁজা শুরু হয়েছে বেশ কয়েক মাস আগে থেকেই। দুর্গা ঠাকুরের মুখও দেখা যাবে, আবার সামাজিক দূরত্বও বজায় থাকবে।‌ চলল ভাবা আর ভাবার প্র‌্যাক্টিস। বেরিয়ে এল উপায়। নতুন এই পথের নাম দেওয়া হল ‘‌ড্রাইভ–ইন দর্শন’‌। গাড়ি করে দর্শনার্থীরা প্যান্ডেলে ঢুকবেন। গাড়ির গতিবেগ কমিয়ে দেবেন। দুর্গা মায়ের মুখদর্শন করে আবার অন্য প্যান্ডেলের দিকে চলে যাবেন। ম্যাপটিও সেভাবেই করা হয়েছে। দক্ষিণ কলকাতার তিনটি পুজো কমিটি মিলে এই সিদ্ধান্তে এসেছে। 
‘‌আমাদের উৎসাহদাতা মৃদুল পাঠক, টেক্সাস থেকে ভিডিও কনফারেন্সিংয়ের মাধ্যমে এই বুদ্ধিটা দিয়েছেন। তারপরেই আমরা কাজে নেমে যাই।’‌ জানালেন, বাদামতলা পুজো কমিটির অধিকর্তা কপিল দেব পাঠক।
নিয়মের মধ্যে প্রথমেই যেটা ভাবা হয়, গাড়িগুলি প্যান্ডেলে ঢোকার আগেই স্যানিটাইজার স্প্রে করা হবে। প্রথম প্যান্ডেলটি হল বাদামতলা পুজো প্যান্ডেল। সেখানে মূর্তি দেখে গাড়ি সোজা চলে যাবে ৬৬ পল্লীর প্যান্ডেলে। ওখান থেকে নেপাল ভট্টাচার্য স্ট্রিট দুর্গা পুজো। এবারে সত্যজিৎ রায়ের জন্মের ১০০ বছর পেরল। সেই উপলক্ষ্যে তাঁকে শ্রদ্ধা জানানোর কথাও ভাবছেন আয়োজকেরা। ‘‌অপু ট্রিলজি’‌–কে পুজোর থিম হিসেবে বেছে নিয়েছেন তাঁরা। বাদামতলা পুজো প্যান্ডেলে থাকবে ‘‌পথের পাঁচালী’ ছবির আমেজ। ৬৬ পল্লীর প্যান্ডেলে ‘‌অপরাজিত’–এর কথা বলা হবে।‌ এবং নেপাল ভট্টাচার্য স্ট্রিট দুর্গা পুজো প্যান্ডেলটি বানানো হবে ‘অপুর সংসার‌’ ছবিটিকে মাথায় রেখে।

জনপ্রিয়

Back To Top