আজকালের প্রতিবেদন: যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয়ের ভেতরে গোলমালের পর দুর্গাবাহিনী ঝাঁপাল বিশ্ববিদ্যালয়ের সামনের রাস্তাতেও। আগুন ধরানো হল, টায়ার পোড়ানো হল। সেই ভিড়ে মিশে গেল লাঠিসোঁটা নিয়ে বহিরাগত লোকজনও। হোর্ডিং ভাঙা হল। কাজের দিনের সন্ধেবেলায় পথ অবরোধের জেরে চরম দুর্ভোগে পড়লেন নিত্যযাত্রীরা। এর আগে বিশ্ববিদ্যালয়ের ভেতরে ইউনিয়ন রুমে ভাঙচুর চালানো হয়। দেখা যায়, বিশ্ববিদ্যালয়ের গেটের ভেতর লাঠি উঁচিয়ে একদল ঢুকছে। বিশ্ববিদ্যালয়ের অন্য গেটে তখন কলকাতা পুলিশের বিশাল বাহিনী। এবিভিপি সমর্থকদের ভিড়ে বাইরের লোকজন লাঠিসোঁটা নিয়ে ঢুকে পড়েছে, এরকম অভিযোগ শোনা গেছে স্থানীয়দের কাছে।

একটা সময় পরিস্থিতি এতটাই ঘোরাল হয়, বহু গাড়ি দাঁড়িয়ে পড়ে। এরপর পুলিশের একাংশ গিয়ে ফাঁকা করে দেয়। তখন একটি রাস্তা দিয়ে গাড়ি চলাচল শুরু হয়।কিন্তু তীব্র যানজট থাকে। দেখা যায়, বিক্ষোভকারীরা লাঠি নিয়ে নানা জায়গায় দৌড়ে বেড়াচ্ছে। এতে আশপাশের লোকজন সন্ত্রস্ত হয়ে ওঠেন। পরে অবশ্য রাতের দিকে অবরোধ উঠে যায়। রাস্তার নানা জায়গায় পড়ে থাকতে দেখা যায় ইট, পোড়া টায়ারের টুকরো। ঘটনাস্থলে গিয়ে দেখা যায়, যে ভিড়টা ভেতরে ছিল, হঠাৎই তাদের একাংশ বাইরে চলে আসে। রাস্তায় বসে পড়ে। অন্যদল গিয়ে গাড়িঘোড়া আটকানোর চেষ্টা করে। বিশ্ববিদ্যালয়ের ভেতর ও বাইরে দীর্ঘক্ষণ চলে গোলমাল।‌‌

 

ইউনিয়ন রুমে ভাঙচুর। অাগুন দিয়ে গুন্ডাগিরি। ছবি: সুকমল শীল

জনপ্রিয়

Back To Top