আজকাল ওয়েবডেস্ক:‌ ‘‌আজকেই চার ঘণ্টার মধ্যে কাজে যোগ দিতে হবে। না হলে হস্টেল খালি করে দিতে হবে। যারা কাজে যোগ দেবে না তাদের হস্টেলে থাকা চলবে না।’‌ বৃহস্পতিবার দুপুরে এসএসকেএম হাসপাতালে গিয়ে বিক্ষোভরত জুনিয়র ডাক্তারদের উদ্দেশ্যে এই হুঁশিয়ারিই দিলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জি। তিনি আন্দোলকারীদের কড়া বার্তা দিয়ে বলেছেন, ‘মানুষকে পরিষেবা দিতে হবে। ‌পরিষেবা না দিলে ডাক্তার হওয়া যায় না। যারা কাজে যোগ দেবে না তাদের কোনওরকম সাহায্য সরকার করবে না।’‌ এদিন ১২.‌৩০ মিনিট নাগাদ এসএসকেএম হাসপাতালে যান মুখ্যমন্ত্রী। গাড়ি থেকে নামতেই তাঁকে ঘিরে ‘‌উই ওয়ান্ট জাস্টিস’‌ স্লোগান তুলে বিক্ষোভ দেখাতে শুরু করেন আন্দোলনরত জুনিয়র ডাক্তাররা। এই আন্দোলনের মধ্যে বহিরাগতরা আছে বলে সন্দেহ প্রকাশ করে এবং আন্দোলনকে ধিক্কার জানিয়ে মমতা বলেছেন, ‘‌কাজ করতে গিয়ে অনেক পুলিস মারা  যান। কিন্তু তাঁরা কখনও স্ট্রাইক করে না।’ মমতা এদিন বিক্ষোভকারীদের বলেছেন, যারা সোমবারের ঘটনা ঘটিয়েছিল পুলিস সেখানে পদক্ষেপ করেছে। পাঁচজন গ্রেপ্তারও হয়েছে।
গত সোমবার রাতে এনআরএস হাসপাতালে মহম্মদ শাহিদ নামে এক ব্যক্তির মৃত্যুতে চিকিৎসায় গাফিলতির অভিযোগ তুলে কর্তব্যরত জুনিয়র ডাক্তারদের মারধর করে রোগীর পরিবারের লোকজনরা। তাদের ছোড়া ইটের আঘাতে মাথা ফেটে যায় পরিবহ মুখার্জি নামে এক জুনিয়র ডাক্তারের। পাল্টা মারধর করেছেন জুনিয়র ডাক্তাররাও। তারপরই মঙ্গলবার সকাল থেকে নিজেদের নিরাপত্তার দাবিতে হাসপাতালের গেটে তালা ঝুলিয়ে এবং বহির্বিভাগ বন্ধ করে অবস্থান বিক্ষোভে বসেন এনআরএস–এর জুনিয়র ডাক্তাররা। সেদিনই ক্রমে এনআরএস–এর আন্দোলন ছড়িয়ে পড়ে কলকাতা এবং জেলাগুলির হাসপাতালে। ‌‌‌
ছবি:‌ এএনআই‌

জনপ্রিয়

Back To Top