আজকালের প্রতিবেদন: কলকাতা থেকে চীন পর্যন্ত ছুটবে বুলেট ট্রেন। চীনের কুনমিং প্রদেশ থেকে এই ট্রেন ঢাকা এবং মায়ানমার হয়ে আসবে কলকাতায়। কমবে দূরত্ব। বঁাচবে সময়। বুধবার কলকাতায় চীনের কনস্যুলেট জেনারেল এবং অবজার্ভার রিসার্চ ফাউন্ডেশনের (‌ওআরএফ)‌ যৌথ উদ্যোগে ‘‌থিঙ্ক ট্যাঙ্ক কনফারেন্স’‌ শীর্ষক এক আলোচনাসভায় এ কথা জানান কলকাতায় চীনের কনসাল জেনারেল মা ঝানয়ু। 
কনসাল জেনারেল বলেন, ‘‌একজন বিশেষজ্ঞ এ ব্যাপারে একটি প্রস্তাব দিয়েছেন। বিষয়টি আমরা ভেবে দেখছি। এর ফলে গোটা এশিয়াকেই যুক্ত করা যাবে।’‌ কলকাতা থেকে আকাশপথে কুনমিংয়ের দূরত্ব ১৪৮৬ কিলোমিটারের কাছাকাছি। দু’‌দেশের নাগরিকেরা বিমানেই মূলত যাতায়াত করেন। চীনে যে বুলেট ট্রেন চালু আছে, প্রতি ঘণ্টায় তার সর্বোচ্চ গতিবেগ ৩৫০ কিলোমিটার। কনসাল জেনারেলের একটি সূত্রে জানা গেছে, কুনমিং প্রদেশে পর্যটনের প্রসার নিয়ে উৎসাহী চীন। ফলে আগামী দিনে পর্যটনের আরও প্রসার এবং পূর্ব ভারত বিশেষ করে পশ্চিমবঙ্গের সঙ্গে আরও নিবিড় সপর্কের বিষয়ে উৎসাহী চীন। ওই সূত্রটি জানিয়েছে, কলকাতার একজন ব্যবসায়ী ৯০০–র কাছাকাছি লোকজন নিয়ে তঁার বিয়ের অনুষ্ঠান সারতে কুনমিঙে যাচ্ছেন। 
এদিন কনসাল জেনারেল জানিয়েছেন, চলতি বছরের জুন মাসে মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জির চীন সফর করার কথা থাকলেও বিষয়টি শেষ পর্যন্ত বাতিল করেন তিনি। পদ্ধতিগত ত্রুটির জন্য ওই সফর বাতিল হয়েছিল। তঁার সফর নিয়ে খুবই উৎসাহী চীন। ইতিমধ্যেই মুখ্যমন্ত্রীর অফিসে চিঠি পাঠানো ছাড়াও বিষয়টি নিয়ে চীনের তরফ থেকে আরও একবার অনুরোধ জানানো হয়েছে বলে জানিয়েছেন তিনি। বিধাননগরের বি জে ব্লকের দুর্গাপুজোয় সহায়তা করছে চীন। রাজ্য সরকার আয়োজিত পুজো কার্নিভ্যালে যাতে এই পুজোকেও যুক্ত করা হয়, সে–‌বিষয়ে উৎসাহী তঁারা। সভায় উপস্থিত বক্তারা এদিন বিনিয়োগ এবং বাণিজ্য বৃদ্ধির মাধ্যমে চীন ও পূর্ব ভারতের পারস্পরিক সম্পর্ক বাড়ানোর পক্ষে সওয়াল করেন। ছিলেন ওআরএফ–এর ডিরেক্টর অশোক ধর–সহ ভারত ও চীনের বিশিষ্টরা। এদিন উপস্থিত ভারতের প্রাক্তন মেজর জেনারেল অরুণ রায় বলেন, সম্পর্কের উন্নতির জন্য সবার আগে দুটি দেশকে নিজেদের মধ্যে বিশ্বাস 

জনপ্রিয়

Back To Top