আজকাল ওয়েবডেস্ক:‌ মাঝেরহাট সেতুর পর এবার চেতলা সেতু। ভেঙে পড়ল চেতলা সেতুর আন্ডারপাসের চাঙড়। দুর্ঘটনায় আহত হলেন ১ পথচারী। ঘটনায় ইতিমধ্যে ছড়িয়েছে তীব্র চাঞ্চল্য। পৌঁছেছেন পুলিস আধিকারিকরা। তবে বড়সড় কোনও দুর্ঘটনা ঘটেনি।
জানা গিয়েছে, এদিন সকালে চেতলা ব্রিজের ওই আন্ডারপাসটির একটি অংশের সিমেন্ট খসে পড়ে। ওই সময় সেখানে উপস্থিত এক মহিলা আহত হন। সেতুর ওই অংশটিকে এক বছর আগেই সিমেন্টের প্রলেপ দেওয়া হয়েছিল। সেখান থেকেই খসে পড়ে সিমেন্টের একাংশ। সরিয়ে নিয়ে যাওয়া হয়েছে সেতুর নিচে বসা ব্যবসায়ীদের। তবে মাঝেরহাটের সেতুর পর এই ঘটনায় উত্তেজনা ছড়িয়েছে গোটা এলাকায়।‌ চাঙড় ভেঙে পড়া ঘটনাটি দেখতে ইতিমধ্যে ভিড় জমিয়েছেন অনেকে। তবে তাঁদেরও সরিয়ে দিয়েছে পুলিস।
এদিকে, মাঝেরহাট সেতু বিপর্যয়ের জেরে গত এক সপ্তাহ ধরে চলা যানজনট সমস্যার সমাধান মিলল। আপাতত নিউ আলিপুরের কাঠপোলের উপর দিয়ে যান চলাচল করবে। স্থানীয় বাসিন্দাদের সঙ্গে আলোচনার পরই এই সমাধানসূত্র পেল পুলিস। ওই সেতু দিয়ে যাতে ভালোভাবে গাড়ি চলতে পারে, সেজন্য সেতুর মাঝে থাকা ডিভাইডার ভেঙে ফেলা হয়েছে। পুলিস জানিয়েছে, সেতুটি সাফাইয়ের পরই খুলে দেওয়া হবে ছোট চারচাকা গাড়ি, বাইক এবং স্কুটারের মতো যানের জন্য। তবে কোনও ভারী পণ্যবাহী গাড়ি কাঠপোল দিয়ে যাতায়াত করবে না। নিউ আলিপুর থেকে রবীন্দ্র সরোবরগামী গাড়ি এবং উল্টোদিক থেকে আসা গাড়িগুলি কাঠপোলের উপর দিয়ে দেশপ্রাণ শাসমল রোড হয়ে চলে যেতে পারবে টালিগঞ্জ বা রাসবিহারী রোডের দিকে। এর ফলে গত সাতদিন ধরে যানজটে কলকাতাবাসীর যে নাভিশ্বাস উঠেছিল তা অনেকটাই লাঘব হবে বলে মনে করছে পুলিস। এমনকি মঙ্গলবারও টালিগঞ্জ ফাঁড়ি, বালিগঞ্জ সার্কুলার রোডে দেখা যায় গাড়ির লম্বা লাইন।
কিন্তু নিউ আলিপুরের কাঠপোল সেভাবে অতিরিক্ত গাড়ির চাপ নেওয়ার অবস্থায় না থাকায় প্রথমে স্থানীয় বাসিন্দা এবং ব্যবসায়ীরা আপত্তি জানিয়েছিলেন। এরপর সেতুর স্বাস্থ্য পরীক্ষা করতে খবর দেওয়া হয় সেচ দপ্তরকে। সেচকর্মীরা গিয়ে সেতুর হাল খতিয়ে দেখে সবুজ সঙ্কেত দেওয়ার পরই আশ্বস্ত হন স্থানীয়রা। এছাড়া পুলিসও আশ্বাস দেয়, ওই এলাকায় সব সময় পুলিসকর্মী মোতায়েন থাকবেন এবং তাঁরা নজরদারি চালাবেন কোনও ভারী কাঠপোলে উঠে পড়ছে কিনা। তারপরই মেলে সমাধান সূত্র।      

জনপ্রিয়

Back To Top