আজকালের প্রতিবেদন: কলকাতা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে শিশু অদল–বদলের অভিযোগ খারিজ করল তদন্ত কমিটি। সোমবার ডানকুনির বাসিন্দা রীতা দেবনাথ এবং তাঁর স্বামী শিশু বদল এবং চিকিৎসক মারধর করে বলে লিখিত অভিযোগ জানান হাসপাতাল কর্তৃপক্ষের কাছে। প্রসূতির দাবি ছিল তাঁর পুত্র সন্তান জন্মায়, দেখানোও হয়।  কিন্তু পরে বেডে তাঁর কাছে কন্যা সন্তান 
দেওয়া হয় বলে অভিযোগ করেন। ঘটনায় হাসপাতাল কর্তৃপক্ষের নির্দেশে চার সদস্যদের তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়। কমিটিতে ছিলেন ডেপুটি সুপার, নার্সিং সুপার, স্ত্রীরোগ বিভাগের প্রধান চিকিৎসক এবং সিকিউরিটি অফিসার। তদন্ত করতেই জানা যায় ওই প্রসূতির পুত্র হয়নি। তৃতীয়বার কন্যা সন্তান হওয়াতে সম্ভবত ওই মহিলা মানসিক সমস্যার মধ্যে ছিলেন। সেই কারণে কোনও ভুল ধারণা হতে পারে। তার জন্যই হয়ত শিশু চুরির অভিযোগ করেন। তাঁকে মনোরোগ বিভাগের চিকিৎসককে দেখানোর পরামর্শ দেওয়া হয়। 
হাসপাতালের সুপার ডাঃ ইন্দ্রনীল বিশ্বাস  ‘‌ওই প্রসূতি পুত্র সন্তানের জন্ম দেননি।  রবিবার তাঁকে ভর্তি করা হয়। সোমবার ভোর পাঁচটায় তিনি কন্যা সন্তানের জন্ম দেন।  প্রসূতি বিভাগের রেকর্ডে দেখা গেছে, রবিবার রাত ২টো ২০ থেকে সোমবার সকাল ১০ টা অবধি সাতটি ডেলিভারি হয়েছে, তার মধ্যে কোনও পুত্র সন্তানের জন্ম হয়নি। সুতরাং প্রাথমিকভাবে সদ্যজাত বদলের এবং মারধর করারও কোনও প্রমাণ মেলেনি। তাই আপাতত তাঁদের অভিযোগ খারিজ করা হয়েছে।’‌

জনপ্রিয়

Back To Top