আজকালের প্রতিবেদন‌‌‌: পারিবারিক অশান্তির ঘটনা নিয়ে ফের উদ্বেগ প্রকাশ করল কলকাতা হাইকোর্ট। বাবা–‌মায়ের ওপরে ছেলে–‌বৌমার অত্যাচারের একটি অভিযোগ শুনে, শুক্রবার ক্ষোভ প্রকাশ করলেন বিচারপতি নাদিরা পাথেরিয়া। আগামী তিন সপ্তাহের মধ্যে ছেলে–‌বউকে বাড়ি ছাড়ার নির্দেশ দিয়েছেন বিচারপতি।
মামলাকারী হাড়োয়ার বাসিন্দা পেশায় প্রাক্তন শিক্ষক ধনঞ্জয় মণ্ডলের অভিযোগ, তিনি ও তাঁর স্ত্রী কুমুদিনী মেজ ছেলে ও তার বউয়ের অত্যাচারে ঘরছাড়া। সম্পত্তির লোভে মেজ ছেলে প্রকাশ ও অপর্ণা তাঁদের বাড়ি থেকে বের করে দিয়েছে। বর্তমানে তাঁরা সোদপুরে মেয়ের বাড়িতে রয়েছেন। মেজ ছেলে–‌বৌমার অত্যাচারে তাঁদের অন্য ২ ছেলেও বাড়িছাড়া। তাঁদের আবেদন, নিজেদের বাড়িতে শান্তিপূর্ণ ভাবে থাকার ব্যবস্থা করুক আদালত।
শুক্রবার বিচারপতি প্রকাশকে ডেকে জানতে চান তিনি কী করেন। প্রকাশ জানান পেশায়  তিনি প্রাইভেট টিউটর। এমএ পাশ করে চাকরি পাননি।‌  বিচারপতির মন্তব্য, ‘‌কেমন শিক্ষক আপনি?‌ মা–‌বাবার ওপর অত্যাচার করেন। আপনার ছাত্রছাত্রীরা আপনাকে ধরে মারে না! আপনার বডি ল্যাঙ্গুয়েজ বলে দিচ্ছে আপনি কত খারাপ।’‌ বিচারপতির আরও মন্তব্য, ‘‌যে ছেলে বাবা মায়ের ওপর অত্যাচার করে, তার বাড়িতে থাকার কোনও অধিকার নেই।’‌
বিচারপতি প্রকাশকে বাড়ির চাবি বাবা–‌মায়ের হাতে তুলে দিতে বলেন। পুলিস আদালতে জানায়, ছেলে–‌বউয়ের বিরুদ্ধে একটি মামলা শুরু হয়েছে। আদালতে প্রকাশ ও অপর্ণা দোষ স্বীকার করে তাঁদের একবার সুযোগ দিতে বলেন। সম্প্রতি এমনই ঘটনার সুরাহা করতে ব্যারাকপুরের রামকৃষ্ণ মিশনে এক দম্পতিকে পাঠিয়েছেন বিচারপতি।‌‌‌‌‌

জনপ্রিয়

Back To Top