আজকাল ওয়েবডেস্ক:‌ এক কৃষ্ণাঙ্গ যুবককে বাহুবলের চাপে হত্যার ঘটনা নকল করে ছবি আপলোড করেছিলেন সোশ্যাল মিডিয়ায়। কিন্তু জর্জ ফ্লয়েডকাণ্ডে চাপে থাকা আমেরিকার পুলিশ প্রশাসন আর কোনও ঝুঁকি নিতে চায়নি। অবিলম্বে দুই পুলিশ অফিসারকে বরখাস্ত করেছে কোলোর‌্যাডো পুলিশ। স্থানীয় সময় শুক্রবার বিবৃতি দিয়ে সেকথা জানিয়েছে তারা।
কোলোর‌্যাডোর অরোরায় এলাইজাহ্‌ ম্যাককেইন নামে ২৩ বছরের ওই কৃষ্ণাঙ্গ যুবককে গত বছর অগাস্টে প্রথমে বাহুবলের চাপে শ্বাসরোধ করেন অরোরা থানার কর্তব্যরত পুলিশকর্মীরা। তারপর ইঞ্জেকশনে কেটামাইন দিয়ে তাঁকে অবশ করে দেওয়া হয়। তার তিনদিন পর কার্ডিয়্যাক অ্যারেস্টে মৃত্যু হয় এলাইজাহ্‌র। গত বছরের ঘটনা হলেও ফ্লয়েডকাণ্ডের পর এধরনের বিভিন্ন ঘটনা নিয়ে নাড়াচাড়া হচ্ছে মার্কিন পুলিশে। সেভাবেই অরোরার ওই ঘটনাও সামনে আসার পর শহরে প্রতিবাদ মিছিল শুরু হয়। অভিযুক্ত অফিসারদের শাস্তির দাবি জানায় জনতা। ঘটনার জেরে পুলিশ প্রশাসন এসপ্তাহেই বিশেষ তদন্তের নির্দেশ দিয়েছিল। তদন্তে উঠে আসে এরিকা মারেও, কাইল ডিট্রিচ এবং জ্যারন জোন্স মিলে বাহুবলের চাপে শ্বাসরোধ করেছিলেন এলাইজাহ্‌র। আর তারপর গত অক্টোবরে ওই ঘটনার নকল করে ছবি পোস্ট করেছিলেন। 
স্থানীয় সময় শুক্রবার অরোরার অন্তর্বর্তী পুলিশ প্রধান ভ্যানেসা উইলসন জানান, মারেও এবং ডিট্রিচকে শুক্রবারই বরখাস্ত করা হয়েছে। জোন্স গত মঙ্গলবার নিজেই পদত্যাগ করেন। ওই ঘটনার সঙ্গে পরোক্ষে যুক্ত আরেক পুলিশ অফিসার জেসন রোজেনব্লাটকেও বরখাস্ত করা হয়েছে। কারণ, অভিযুক্ত তিন অফিসারের একজন জেসনকে ওই ছবিটি পাঠালে পর তিনি ‘‌হা হা হা’‌ করে হাসি লিখে পোস্ট করেছিলেন। পুলিশ প্রধান ওই ঘটনার জন্য নিজের সহকর্মীদের ব্যবহারে দুঃখপ্রকাশ করে বলেছেন, সেসময় ওই ঘটনায় পুলিশ বিরুদ্ধে সমাজে যে কীধরনের কুপ্রভাব পড়েছিল তা তিনি অনুধাবন করতে পারছেন। ওই মামলায় ন্যায়বিচারের আশ্বাস দিয়েছেন উইলসন।   

জনপ্রিয়

Back To Top