আজকাল ওয়েবডেস্ক:‌ ডালাস থেকে লাস ভেগাস যাচ্ছিল বিমান। মাঝ আকাশেই অসাড় হয়ে পড়েন মহিলা। সঙ্গে সঙ্গে বিমানটিকে অ্যালবিউকার্কে নামানো হয়। জরুরি ভিত্তিতে। বিমান বন্দরেই চিকিৎসকরা পরীক্ষা করে দেখেন, মারা গেছেন ৩৮ বছরের ওই মহিলা।
এখানেই শেষ নয়। পরে চিকিৎসকরা জানতে পারেন, কোভিড হয়েছিল মহিলার। তার জেরেই শ্বাসকষ্ট হচ্ছিল। তা থেকে বিমানেই মৃত্যু। বিমান কর্তৃপক্ষ এসব কিছুই জানত না। মহিলা নিজে কি জেনেই বিমানে উঠেছিলেন?‌ রোগ গোপন করেছিলেন?‌ জানা যায়নি। তাঁর সঙ্গে এক আত্মীয় ছিলেন। তিনিও মুখ খোলেননি।
ঘটনাটি ২৪ জুলাইয়ের। এখন প্রকাশ্যে এল। মৃতার ওজন অস্বাভাবিক বেশি ছিল। তার মধ্যে কোভিড সংক্রমণই মৃ্ত্যু ডেকে এনেছে। বিমানকর্মীরা সিপিআর দিয়ে তাঁর শ্বাসচালনার চেষ্টা করেন। লাভ হয়নি। আমেরিকায় অবশ্য কোভিড নিয়ে এই ছেলেখেলা নতুন নয়। মাস্ক, দূরত্ববিধি— কোনও কিছুই মানতে চান না বেশিরভাগ মার্কিনি। খোদ প্রেসিডেন্ট ট্রাম্পই এসব মানতে চাননি। 
পরিসংখ্যান বলছে, ১,৬০০ যাত্রী কোভিড গোপন করে বিমানে চেপে ঘুরেছেন আমেরিকায়। যার জেরে ঝুঁকির মুখে পড়েছে ১১ হাজার জন। অন্যান্য সময়ের তুলনায় এখন আমেরিকার বিমানে যাত্রী সংখ্যা কমে গিয়েছে। বিমান সংস্থাগুলো বারবার জানাচ্ছে, সুরক্ষিতভাবেই উড়ানের ব্যবস্থা করছে তারা। তার মধ্যেই প্রকাশ্যে এল এই ঘটনা। 

জনপ্রিয়

Back To Top