আজকাল ডেস্ক:‌ মিনিয়াপোলিস পুলিশের হাতে জর্জ ফ্লয়েডের হত্যা ঘিরে উত্তাল আমেরিকা। পথে নেমেছেন লক্ষ মানুষ। বিক্ষোভ, মিছিলের পাশেই চলেছে অবাধ লুঠপাট। ভাঙচুর। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে কারফিউ জারি করেছে মার্কিন পুলিশ এবং প্রশাসন। 
বিক্ষোভ দমাতে একটু বেশিই বাড়াবাড়ি করছে পুলিশ বলে অভিযোগ। পুলিশি অত্যাচারের ছবি, ভিডিও উঠে আসছে। এবার অভিযুক্ত দুই পুলিশ অফিসার কড়া শাস্তি পেলেন। নিউ ইয়র্কের ওই দুই অফিসারকে সাসপেন্ড করা হল। বিনা বেতনে। 
২৫ মে মিনিয়াপোলিস পুলিশের হাতে খুন হন ৪৬ বছরের কৃষ্ণাঙ্গ জর্জ ফ্লয়েড। পুলিশ, প্রশাসনকে বর্ণবিদ্বেষী দাগিয়ে বিক্ষোভের আগুন জ্বলে ওঠে আমেরিকায়। জায়গায় জায়গায় কারফিউ জারি হয়। ব্যতিক্রম নয় নিউ ইয়র্ক। সেখানে কারফিউয়ের মধ্যেই প্রতিবাদ করে এগিয়ে আসছিলেন এক শ্বেতাঙ্গ প্রৌঢ়। তাঁর বয়স ৭৫ বছর। তাঁকে ধাক্কা দিয়ে মাটিতে ফেলে দেন দুই পুলিশ অফিসার। একজন আবার লাঠি দিয়ে ধাক্কা দেন। মাটিতে পড়ে যান তিনি। মাথা ফেটে গড়িয়ে পড়ে রক্ত। সেই ভিডিও এবার ভাইরাল। 
অভিযুক্ত পুলিশ অফিসারদের শাস্তির দাবিতে সরব হয় সোশ্যাল সাইট। নড়েচড়ে বসে প্রশাসন। বৃহস্পতিবার দুই অভিযুক্তকে সাসপেন্ড করা হয়। বেতন পাবেন না তাঁরা। ঘটনায় দুঃখ প্রকাশ করেন নিউ ইয়র্কের বাফেলো শহরের মেয়র বায়রন ব্রাউন। তবে প্রৌঢ়ের পরিচয় এখনও জানা যায়নি। 

জনপ্রিয়

Back To Top